পাঠকের চিঠি

আমি নবাবজাদা

  

পিএনএস(মোহাম্মদ হানিফ, দক্ষিণ কোরিয়া থেকে) : কালের পরিক্রমায় আলোচনা-সমালোচনায় আসেন প্রবাসীরা। তবে সব সময় প্রবাসীদের আলোচনার চেয়ে সমালোচনার পাল্লাটাই অনেক ভারী। প্রবাসীদের বাস্তবতার বিশ্লেষণ পুরোটাই ভিন্ন।বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। কথাটা সত্যি, কিন্তু এর সিংহভাগ চালিকা শক্তি কাদের হাতে, তা আমরা ভুলে যাই। ভুলে যাই ভূতপূর্বকাল। আজ হঠাৎ দেখি অনেক প্রবাসীদের ফেসবুক ওয়ালে নবাবজাদা নিয়ে অনেক স্ট্যাটাস, অনেকেই লিখেছেন, ‘আমি নবাবজাদা’।এর কারণ ইতিমধ্যেই আমাদের কাছে স্পষ্ট।

কঠিন সময় পার করছেন গণমাধ্যমকর্মীরা

  

পিএনএস (সেলিম আহমেদ) : বাংলাদেশের গণমাধ্যম এক কঠিন সময় অতিক্রম করছে। ভালো নেই দেশের অধিকাংশ গণমাধ্যম ও গণমাধ্যমকর্মীরা। রাজধানী থেকে শুরু করে মফস্বল, সব জায়গায় একই অবস্থা। একদিকে নেই চাকরি আর বেতন-ভাতার নিশ্চয়তা। অন্যদিকে নেই নিরাপত্তা। সঠিক খবর তুলে ধরলেই নেমে আসে নির্যাতনের স্ট্রিমরোলার। হামলা, মামলা দিয়ে হয়রানি এমনকি খুনও করা হয় সাংবাদিককে।সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত এক তথ্য অনুযায়ী, সংবাদ প্রকাশের জের ধরে ২০০৯ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত গত ১০ বছরে বাংলাদেশে ৩৬ জন সাংবাদিককে হত্যা করা

সুজলা সুফলা শস্য শ্যামলা বাংলাদেশে সবই সম্ভব

  

পিএনএস ডেস্ক: মনটা বেশি ভালো না। কারণ চারিদিকে যে সব ঘটছে মন ভালো রাখা বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে। যে সব ঘটনা ঘটে চলছে যা সত্যি অবিশ্বাস্য। এ কারণে মনের ওপর চাপ সৃষ্টি হচ্ছে। বাংলাদেশের হাসপাতালের সামনে ফুলগাছ লাগাতে খরচ হয় লক্ষ টাকা।কলাগাছের দাম লক্ষ টাকা, নারিকেল গাছের দাম প্রায় কোটি টাকা হঠাৎ শুনব তাল গাছের দাম কোটি টাকা। সচেতন নাগরিক হিসেবে মনে ভাবনা আসতেই পারে, আহারে! দেশের মানুষ যেন মানুষ তো নয় মনে হচ্ছে এসব কাজ যারা করছে তারা সবগুলোই দানব। দেশ চোরের খনি না পেলেও ডাকাতের খনি পেয়েছে। আমার

‘নারী ও মা থেকে দেশনেত্রী’

  

পিএনএস (মিনহাজ আহমেদ প্রিন্স) : নারী শব্দটি সামনে পড়লেই সর্বপ্রথম যে বিষয়টি অন্তস্থ হয় তা হচ্ছে মা’। আবার এই নারীই হচ্ছে বোন, ভগ্নি কিংবা প্রিয়তমা সহযাত্রী বা প্রেরণার প্রেয়সী। আমাদের মতো উন্নয়নশীল ও কিছুটা রক্ষণশীল দেশে যেখানে মৌলিক চাহিদা পূর্ণ করাই সর্বাগ্রে সেখানে নারীকে বিশেষ বিবেচনা প্রদান কিংবা নারীর ক্ষমতায়ন অনেকটাই কল্পনাতীত। তবে হ্যাঁ, এতোদসত্ত্বেও নারীকে সম্মান, মর্যাদা ও ক্ষমতায়নের বিশেষ গুরুত্বটি সামনে আনতে পারাটাই সমাজ-সভ্যতা-সংস্কৃতির সুরুচি ও অগ্রগতির পরিচায়ক। কেননা জাতীয় কবি

কে শ্রেষ্ঠ, নারী না পুরুষ?

  

পিএনএস : আসলে নারী আর পুরুষ নিয়ে এই সমাজের বিতর্কটা একটা মূর্খতা ছাড়া আর কিছু না। এখানে দুজনই যার যার অবস্থানের দিক থেকে শ্রেষ্ঠ। নারীর শ্রেষ্ঠত্বের অবস্থানে পুরুষের অবস্থান শূন্যের কোঠায় আবার পুরুষের শ্রেষ্ঠত্বের স্থানে নারীর অবস্থান শূন্যের কোঠায়। তাহলে দাঁড়ালো নারী আর পুরুষ একে অন্যের পরিপূরক। যে মানুষের ছোট বেলা থেকে বাবা নেই বা বাবার আদর থেকে যে বঞ্চিত, সে মানুষটিকে তার মা যতোই আদর, ভালোবাসা, শাসন দিয়ে রাখুক না কেন সেই কেবল জানে তার বাবার ভালোবাসা, আদর বা শাসনের শুণ্যতা কতটুকু নিয়ে বেঁচে

সুন্দরবন দিবসে একদিন ঘুরাঘুরি!

  

পিএনএস : ফেব্রুয়ারি মাস চলছে। জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত পিকনিক- শিক্ষা সফরের সময়। এ সময় মেস-প্রতিষ্ঠান,বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা সফরের ভীর পড়ে। এছাড়াও পারিবারিকভাবেও বিভিন্ন স্থাপত্যশিল্প দেখতেও বের হয় মানুষ। সেই ধারাবাহিকতায় বার্ষিক সফর হিসেবে আমরাও রংপুরের সর্দারপাড়া থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি ঠিক করলাম দিনাজুরের সিংড়া ফরেস্ট, কান্তজির মন্দির এবং রামসাগর ভ্রমণে যেতে।কান্তজিউ মন্দির: আমরা যাচ্ছি রংপুর থেকে। গাড়ি চলছে দ্রুত গতিতে। দিনটি শুক্রবার। এছাড়াও অনেক দূর। তাই দ্রতই যেতে হবে। সকাল ৮

দেশীয় চিঠির যোগাযোগ অদৃশ্যের পথে!

  

পিএনএস : পরিকল্পিত উন্নয়নের ছোঁয়াতে বদলে গেছে বা যাচ্ছে বাংলাদেশ। বদলে যাচ্ছে- দেশের জনপ্রিয় ইতিহাস, ঐতিহ্যের তথ্য আদান-প্রদানের বৃহৎ মাধ্যম ডাকঘর। তমধে বদলেও গেছে ছোট্ট একটি শব্দ চিঠি, তার মাধ্যমে আদানপ্রদানের প্রচলন। এমন চিঠির প্রচলন ও ইতিহাসটা ছিল অনেক পুরোনো। চিঠি অথবা পত্রের মাধ্যমে একজনের পক্ষ থেকে অন্যজনের কাছে লিখিত তথ্যধারক বার্তা বললেও ভুল হবে না। চিঠিতেই দুজন বা দুপক্ষের মধ্যেই যেন যোগাযোগ বজায় রাখে। বলাই চলে যে, বন্ধু এবং আত্মীয় স্বজনদের খুবই ঘনিষ্ট করে, পেশাদারি সম্পর্ককে খুব

মোদির দ্বিতীয় ভারত ভাগ

  

পিএনএস ডেস্ক: বহুত্ববাদ ও ধর্মনিরপেক্ষ ঐতিহ্যের ওপর ভারতের যে নৈতিক ভিত্তি দাঁড়িয়ে আছে, সেটিকে এই আইন নাড়িয়ে দিয়েছে। আমি পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বলেছি, আমাদের পূর্বসূরিরা ধর্মীয় বৈষম্য মুক্তির সনদ হিসেবে যে সংবিধান রেখে গেছেন, এই আইন সেটিকে স্পষ্টভাবে লঙ্ঘন করেছে। ভারতের স্বাধীনতাসংগ্রাম যখন চূড়ান্ত সাফল্যকে ছুঁই ছুঁই করছিল, ঠিক তখন ধর্মের ভিত্তিতে ভারতীয় জাতীয়তাকে দুই ভাগ করে ফেলা হয়েছিল। মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ এবং তাঁর অনুসারীরা যুক্তি দিয়েছিলেন, মুসলমানদের জন্য পাকিস্তান নামে আলাদা দেশ

ঝরা পাতা

  

পিএনএস : (মোহাম্মদ হানিফ, দক্ষিণ কোরিয়া থেকে) : প্রকৃতির দরজায় কড়া নাড়ছে শীত। চারদিকে পাহাড়ে ঘেরা সবুজ গাছপালার প্রকৃতির বাহার। এসময়ে প্রকৃতিও যেন তার আপন রং বদলায়। গাছের পাতাগুলো কেমন যেন রং পাল্টাতে শুরু করেছে, সবুজ থেকে হলুদ বর্ণ, সবশেষ লালচে বর্ণের। বিবর্ণ পাতাগুলো আস্তে আস্তে ঝরতে শুরু করে। একটা সময়ে পাতাগুলো সব ঝরে পড়ে আর শূন্য ডালপালা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে শুধু গাছের গুঁড়িটি। বলছিলাম চার ঋতুতে বৈচিত্র্যময় দেশ দক্ষিণ কোরিয়ার কথা। কোরিয়ান ভাষাতে, 봄(বোম) বসন্ত, 여름(ইওরূম)গ্রীষ্ম, 가을(খাঊল)শরৎ ও

প্রসঙ্গঃবিয়া ও কালচারাল কুফু

  

পিএনএস (আতিক মরিসকো) : মুল লেখায় যাওয়ার আগে একটা কনসার্নিং ইনফরমেশন দিয়ে শুরু করি। বেশ সপ্তাহ খানিক আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আমার ফ্যাকাল্টির এক‌টি ডিন অফিসের ভিতরে এক‌টি নোটিশ দেখে চোখ পুরো উল্টে যায়। মালেয়শিয়াতে তালাক বা ডিভোর্স এর হার মহামারি আকার ধারণা করেছে। তাই গভার্নমেণ্ট বাধ্যতামূলক প্রিম্যারেজ কোর্স করেছে ।শুনেছি ঢাকায় নাকি প্রতি ঘন্টায় ১টা ডিভোর্স!!!যাইহোক, আমার ধারণা এসব এর পিছনে অন্যসব কারণের পাশাপাশি কালচারাল কুফু বা মানুসিক সাম্যতা একটা ফ্যাক্টর। এবার চলেন মুল কথায়