সেই বেগুনি রংয়ের ধান ভাল হয়নি

  

পিএনএস, নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার পুটিমারা ইউনিয়নের চড়ারহাটের পশ্চিম পার্শ্বে বিরামপুর-ঘোড়াঘাট পাকা সড়কের উত্তর ধারে নজর কাড়া বেগুনি রংয়ের সেই ধান ক্ষেতটি তেমন ভাল হয়নি।

উপজেলার পুটিমারা ইউনিয়নের দঃ জয়দেবপুর গ্রামের আঃ হামিদের ছেলে কৃষক আঃ হাকিম ওই বেগুনি রংয়ের ধান চলতি বোরো মৌসুমে চাষ করেছিল। হাকিম জানায় গত মৌসুমে গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা এলাকা থেকে বীজ ধান নিয়ে এসে গত ফেব্রুয়ারী মাসের ২ তারিখে পরিক্ষামূলক ভাবে ৩৩ শতাংশ জমিতে চারা রোপন করে। এ ধান চাষে তাকে নবাবগঞ্জ উপজেলা কৃষি বিভাগ থেকে সার্বিক পরামর্শ প্রদান সহ তদারকি করা হচ্ছিল। তার অভিযোগ কৃষি বিভাগ থেকে সে তেমন কোন পরামর্শ পায়নি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবুরেজা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, এ ধান চাষে ওই কৃষককে তার বিভাগ থেকে সার্বিক পরামর্শ প্রদান করা হলেও সে তা গ্রহন করেনি। সড়কের ধারে ধান ক্ষেতটি হওয়ায় এবং রং বেগুনি দেখে ওই পথে যাতায়াত কারীদের ক্ষেতটি নজরে কাড়ে। আজ শুক্রবার সকালে ওই জমিতে গিয়ে দেখা যায় বর্তমান সময়ে ক্ষেতটিতে পোকার আক্রমনে রং বিকৃত হয়েছে। অনেকেই মন্তব্য করছে ক্ষেতটি যেন পুড়ে যাওয়ার মত দেখা যাচ্ছে। ধান ক্ষেতের পরিস্থিতি যাই হোক না কেন কৃষক হাকিম তার আগ্রহ হারায়নি। বর্তমনের ওই ফসল চাষাবাদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আগামী মৌসুমে সে পুনরায় ওই ধান চাষ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এটি কোন জাতের ধান বিষয়টি নিয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান এটি সুন্দরগঞ্জ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে বলে এটাকে সুন্দরী নাম দেয়া হয়েছে। সঠিক পরামর্শ গ্রহন ও পরিচর্জা না করার কারনে ধানটির ফলন যতটা ভাল হওয়ার কথা ছিল ততটা ভাল হয়নি। এ অবস্থায় এখন এর ফলন কি রকম হবে তা জানতে ধান কাটা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech