ফের পেঁয়াজের ঝাজ বাড়ছে, ব্যবসায়ীরা কারণ দেখাচ্ছেন তিনটি

  

পিএনএস ডেস্ক : দেশে পেঁয়াজের ভালো উৎপাদন হওয়ার পরও ভরা মৌসুমে এই মূল্যবৃদ্ধি হচ্ছে।রমজান আসার আগেই রাজধানীর বাজারে বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দর। তিন সপ্তাহের ব্যবধানে ধাপে ধাপে খুচরা বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম কেজিতে প্রায় ১৫ টাকা বেড়েছে। প্রতি কেজির দাম এখন মানভেদে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। এর সঙ্গে ভারতীয় পেঁয়াজের দরও কেজিতে ৫-৭ টাকা বেড়েছে।

তবে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের দাম বাড়ান জন্য তিনটি কারণ দেখাচ্ছেন। এগুলো হলো প্রথমত, বছরজুড়ে সংরক্ষণের জন্য স্থানীয় ফড়িয়া ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ কিনে মজুত করায় সৃষ্ট বাড়তি চাহিদা। দ্বিতীয়ত, কয়েক দিন ধরে বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজ নিয়ে চাষিরা হাটে না আসায় সরবরাহে টান পড়া। তৃতীয়ত, ভারতে দাম কিছুটা বেড়ে যাওয়ার প্রভাব।

রাজধানীর কাজিপাড়া বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতি কেজি ভালো মানের দেশি পেঁয়াজের দাম ছিল ৫০ টাকা। আকারে ছোট দেশি পেঁয়াজের দাম চাওয়া হয় ৪৫ টাকা। প্রতি কেজি ভারতীয় পেঁয়াজের দাম ৩৫ টাকা। দুই-তিন সপ্তাহ আগেও এক কেজি দেশি পেঁয়াজের সর্বোচ্চ দাম ৩৫ টাকা ছিল।সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে, বাজারে এখন দেশি পেঁয়াজের দাম ৪০-৫০ টাকা, যা এক মাস আগের তুলনায় ২৩ শতাংশ বেশি।

কারওয়ান বাজারের পাইকারি দোকানগুলোতে দেশি পেঁয়াজ প্রতি ৫ কেজি ২১০ টাকা, দেশি কিং নামের পেঁয়াজ ৫ কেজি ১৯০ টাকা ও ভারতীয় ছোট পেঁয়াজ ১৫০ টাকা।

এ বছর পেঁয়াজের উৎপাদন ভালো হয়েছে। তবে মৌসুমের শেষ দিকে বৃষ্টিতে আবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসাবে, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশে পেঁয়াজ উৎপাদিত হয়েছে ১৮ লাখ ৬৬ হাজার টন, যা আগের বছরের চেয়ে ১ লাখ ৩১ হাজার টন বেশি। বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে, গত অর্থবছরে ১০ লাখ ৪১ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে, যা আগের বছরের চেয়ে ৩ লাখ ৪০ হাজার টন বেশি। সব মিলিয়ে গত অর্থবছরে পেঁয়াজের জোগান এসেছে ২৯ লাখ টন।

বৃষ্টি-বাদলে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। একই সময়ে চাহিদাও বেড়েছে। আবার ভারতের বাজারও বাড়তির দিকে। এসব কারণেই পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। অবশ্য তিনি বলেন, শ্যামবাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৩৫-৩৮ টাকা। এই দর এক সপ্তাহ আগের চেয়ে ৫-৭ টাকা বেশি।

পিএনএস/জে এ/ মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech