পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উল্টো যাত্রাঃ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের হস্তক্ষেপ দাবী-১

  

পিএনএস (মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার) : বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারী কাজ-কর্ম ও ক্রয় পদ্ধতির স্বচ্ছতার স্বার্থে ই-জিপি চালু করলেও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় চলছে উল্টো পথে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কঠোর নির্দেশনার কারণে ৪ মাস আগে মন্ত্রণালয় স্বপ্রনোদিত ডিপিএম- এর ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করে পত্র জারী করলেও রহস্যজনক কারণে আবার দরপত্র বহির্ভূতভাবে কাজ প্রদান করে চিহ্নিত প্রভাবশালী চক্র পকেট ভারী শুরু করেছে। এদিকে প্রতিযোগিতামূলক দরপত্র বহির্ভূতভাবে কাজ প্রদানের সময় চক্রটি ঠিকাদারের নিকট থেকে কমপক্ষে ১৫% টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে বাজারে প্রচারণা রয়েছে। অগ্রীম আয়কর ও ভ্যাটসহ প্রায় ৩০% টাকা চলে যাওয়ায় বাদবাকী ৭০% টাকা দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্ভবপর না হওয়ায় কাজগুলো মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। ইতিমধ্যে ডিপিএমসহ বিভিন্ন আদলে প্রদত্ত প্রতিযোগিতামূলক দরপত্র বহির্ভূত কাজগুলো পাউবো’র রুগ্ন প্রকল্প হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। এমনকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত স্বপ্নের প্রকল্পগুলোও এই ফাঁদে পড়ে ছটফট করছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জনাকীর্ণ মহাসমাবেশে যে কাজগুলো করার নির্দেশনা দিয়েছেন ডিপিএম-এর ফাঁদে পড়ে সেগুলোও বাস্তবায়ন হয়নি। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন না হলে নির্বাচনের বছরে সরকার বেকায়দায় পড়তে পারে।

পাউবো’র একটি প্রভাবশালী সূত্র জানিয়েছে, তিনি এ সমস্ত দুর্নীতির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। ডিপিএম এবং অর্পিত কাজের ব্যাপারে বরাবরই তাঁর আপত্তি রয়েছে। ইতিমধ্যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ডিপিএম-এর মাধ্যমে কাজের পাহাড় সৃষ্টি করেছে। তারা তাঁদের সাধ্যের বাইরে কাজ নেয়ায় সেগুলো সম্পন্ন করতে পারছে না। কিন্তু একটি চক্র নিজেদের পকেট ভারী করার স্বার্থে ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে আরো কাজ প্রদান করছে। এমনকি ঐ ঠিকাদারী ফার্মের কারিগরী দক্ষতা নেই এমন কাজও ঐ প্রতিষ্ঠানকে ডিপিএম/অর্পিত পদ্ধতিতে প্রদান করছে যার পেছনে রয়েছে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থ ভাগাভাগির ধান্ধা। বিস্ময়ের ব্যাপার এই যে, ঐ চিহ্নিত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কোন ডকইয়ার্ড না থাকলেও ড্রেজার তৈরীর কাজও নেয়ার পায়তারা চালাচ্ছে। পাউবো’র বিভিন্ন পাম্প নির্মাণের কাজেও দুর্নীতি ও ঘাপলা সৃষ্টি করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি। এ ব্যাপারে আমি কথা বলায় পাউবো’র কর্মকর্তা এবং ঠিকাদাররা আমার ব্যাপারে পত্র চালাচালি করে ষড়যন্ত্র করছে।

অভিজ্ঞমহল মনে করেন, অন্তঃত নির্বাচনী বছরে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত জনস্বার্থমূলক কাজগুলো যাতে ডিপিএম/অর্পিত পদ্ধতিতে প্রদান না করা হয় সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের জরুরী হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। (চলবে)

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech