এবার ঢাবি ছাত্রীকে বাসে যৌন হয়রানির অভিযোগ

  

পিএনএস ডেস্ক : রাজধানীতে চলাচলরত ট্রাস্ট পরিবহনের একটি বাসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আটক করল ট্রাস্ট পরিবহনের চারটি বাস।

রোববার (২০ মে) দুপুর আড়াইটা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সামনের সড়কে ওই বাসগুলো আটকে রাখা হয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মোড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের এক ছাত্রীকে ট্রাস্ট পরিবহনের একটি বাসের হেলপার যৌন হয়রানি করেন এবং আজেবাজে কথা বলে হুমকি দেন। এর প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীরা ওই পরিবহনের চার-পাঁচটি বাস ক্যাম্পাসে আটকে রেখেছে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা কয়েকটি বাস আটকে রেখেছে। তবে কে যৌন হয়রানি করেছে তা জানা যায়নি। বাস কর্তৃপক্ষ আসছে। ওই মেয়েকে (ঢাবি ছাত্রী) আসতে বলা হয়েছে। তিনি বিস্তারিত অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব।’

এসব বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘আমরা শিক্ষার্থীদের অভিযোগ শুনেছি। এরই মধ্যে শাহবাগ থানাকে জানিয়েছি। তারাও বিষয়টি দেখছে।’

রাজধানীতে সম্প্রতি বেশ কিছু বাসে মেয়েরা যৌন হয়রানিসহ ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হয়েছেন। এসব নারীদের বেশির ভাগই স্কুল, কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী।

এপ্রিলের শেষ দিকে রাজধানীর উত্তরা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের প্রতিরোধের মুখে দুই দিন বন্ধ থাকে তুরাগ পরিবহন। ছাত্ররা ৫০টিরও বেশি বাস আটক করে চাবি নিয়ে যাওয়ার পর এক পর্যায়ে রাস্তায় এই পরিবহনের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে অভিযুক্ত বাস চালক ও তার দুই সহকারী গ্রেপ্তার হলে ছাত্ররা আটক হওয়া বাসগুলো ছেড়ে দেয়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর স্বামী বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি মামলা করেন। কিন্তু পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার না করায় উত্তরা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা তুরাগ পরিবহনের কয়েকটি বাস আটক রাখেন এবং ১৬ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেয়। এরপর পুলিশ রাজধানীর কয়েকটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তুরাগ পরিবহনের ওই বাসের চালক, চালকের সহকারী ও সুপারভাইজারকে গ্রেপ্তার করে।

পিএনএস/জে এ/ মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech