৩য় শ্রেণির ছাত্রীকে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ

  

পিএনএস : ফরিদপুরে ৩য় শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের শিকার ছাত্রীটি বর্তমানে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় রহিম মোল্লা নামে এক স্কুলছাত্রের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর থেকে রহিম মোল্লা পলাতক রয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলা সদর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণ জাটিগ্রামের খবীর মোল্লার ছেলে ও জাটিগ্রাম মমতাজউদ্দিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রহিম মোল্লা (১৪) তার প্রতিবেশী তৃতীয় শ্রেণির ওই ছাত্রী (৯) কে হাত, পা ও মুখ বেঁধে গ্রামের একটি পাটক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় ছাত্রীটি অচেতন হয়ে পড়ে।

পরে রহিম মোল্লা অচেতন অবস্থায়ই মেয়েটিকে একই গ্রামে তার বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে গাছ থেকে পড়ে গেছে বলে পালিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের সদস্যরা ওই ছাত্রীকে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর ধর্ষণের শিকার ছাত্রীটির জ্ঞান আসলে সে ঘটনাটি সকলকে জানায়।

এ বিষয়ে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো.সালেহ আহম্মেদ সৌরভ জানান, ওই ছাত্রীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ওই রাতেই ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আলফাডাঙ্গা ওসি মো. নাজমুল করিম জানান, এ ব্যাপারে এ পর্যন্ত কেউ থানায় কোনো, অভিযোগ করেনি। তবে ঘটনা জেনে পুলিশ পলাতক রহিমকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল



 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech