বেনাপোল সীমান্তে ৭৫ কেজি স্বর্ণসহ পাচারকারী আটক

  

পিএনএস, বেনাপোল প্রতিনিধি : বেনাপোলের শিকারপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারকালে ৭২ কেজি ৭৫৯ গ্রাম (৬২৪টি স্বর্ণের বার) স্বর্ণসহ মহিউদ্দিন (৩৫) নামে এক স্বর্ণ পাচারকারী আটক হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সীমান্তের নারিকেলবাড়িয়া নামক স্থান থেকে সদস্যরা তাকে আটক করেন। আটক মহিউদ্দিন যশোর জেলার শার্শা উপজেলার শিকারপুর গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে।

অপর দিকে ভারতে পাচারকালে বেনাপোল পুটখালী সীমান্ত থেকে ২ কেজি ওজনের ১১টি স্বর্ণের বারসহ ২ পাচারকারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। আটকরা হলেন- বেনাপোল পোর্ট থানার দৌলতপুর গ্রামের কাশেম আলীর স্ত্রী সফুরা খাতুন (৬২) ও একই থানার ভবারবেড় গ্রামের ইব্রাহিমের ছেলে ইসরাফিল (২২)।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র যশোর-৪৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ আরিফুল হক জানান, গোপন সংবাদে জানা যায় চোরাকারবারীরা বিপুল পরিমাণ একটি স্বর্ণের চালান ভারতে পাচার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। রাত সাড়ে ৯টার দিকে এমন খবরের ভিত্তিতে শিকারপুর বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার মুকুল হোসেন প্রামাণিকের নেতৃত্বে বিজিবির একটি দল অভিযান চালায়। এসময় সীমান্তের ২৯নং মেইন পিলার থেকে ৩০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নারিকেলবাড়িয়া নামক স্থানে পাচারের প্রাক্কালে ৬২৪টি স্বর্ণের বার ও একটি রামদাসহ মহিউদ্দিনকে আটক করা হয়। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে অন্য চোরাকারবারীরা পালিয়ে যায়। অপর দিকে শুক্রবার সকালে বেনাপোল বিজিবি কোম্পানি সদরের হাবিলদার মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে বিজিবি’র একটি টহল দল বেনাপোল-পুটখালি সড়কের শিকড়ি এলাকায় অবস্থান নেয়।

এ সময় শিকড়ি বিজিবি চেক পোস্টের সামনে থেকে সফুরা খাতুন ও ইসরাফিলকে আটক করা হয়। পরে তাদের দেহ তল্লাশি করে ১১টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয় যার ওজন দুই কেজি।

আটককৃতদেরকে স্বর্ণ এবং রামদাসহ বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা রয়েছে বলে তিনি জানান।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech