মেডিকেল ছাত্রীকে একি করলেন চিকিৎসক!

  

পিএনএস ডেস্ক : সিরাজগঞ্জে মেডিকেল কলেজের এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে বেসরকারী নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক ডা. তুহিনকে আটকের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নেপাল থেকে পড়তে আসা একই কলেজের ৪র্থ বর্ষের ওই ছাত্রীর অভিযোগের কারণে তাকে আটক করা হয় বলে সদর থানার ওসি মোহাম্মদ দাউদ জানান।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অভিযোগ, লেখাপড়ার সুবাদে ডা. তুহিন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন তার সঙ্গে। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে যৌন নির্যাতন করেন। সম্প্রতি বিয়ের জন্য চাপ দিলে চিকিৎসক তুহিন অস্বীকার করেন। এ নিয়ে গত শুক্রবার দুপুরে দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার পর রোববার বিকেলে আবারও ওই ছাত্রী ডা. তুহিনের বাড়ি গিয়ে বিয়ের জন্য চাপ দেন। তখনও তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি এমনকি হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।

তিনি আরও বলেন, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার রোববার বিকেলে ডা. তুহিনকে শহরের ধানবান্ধি মহল্লার তার ভাড়া বাসা থেকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা হয়।

এরপর প্রাথমিক তদন্ত শেষে শিক্ষার্থীর অভিযোগ মামলা হিসাবে গ্রহন করে সোমবার বিকেলে প্রভাষককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার তদন্তে সোমবার তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এসএম আকরাম হোসেন জানান, শিক্ষার্থীর অভিযোগ পাওয়ার পর তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech