ব্যাপারি বেশি হওয়ায় খেজুর গুড়ের দাম ঊর্ধ্বমুখী

  


পিএনএস ডেস্ক: শীত এলেই ব্যাপক হারে জমে উঠে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সরোজগঞ্জ বাজারের গুড়ের হাট। ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই সরোজগঞ্জ হাইস্কুল মাঠে গুড়ের ভাড় নিয়ে হাজির খেজুরের রস দিয়ে গুড় উৎপাদনকারী গাছিরা।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ বাজারের ঐতিহ্যবাহী খেজুর গুড়ের হাট দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে চলে আসছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও শীতের শুরুতেই জমে উঠেছে সরোজগঞ্জে খেজুর গুড়ের হাট। আর এই গুড় কিনতে আসছেন দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যাপারীরা। তাছাড়াও শুক্রবার ও সোমবার ২০ থেকে ৩০ ট্রাক খেজুরগুড় দেশের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি হচ্ছে।

অন্যান্য বারের তুলনায় সরোজগঞ্জ বাজারের খেজুরের গুড়ের চাহিদা দেশের বিভিন্ন জেলায় বেড়ে যাওয়ায় দামও বাড়ছে। এছাড়া আমদানির তুলনায় চাহিদা বেশি হলে সব জিনিসের দাম যেমন বৃদ্ধি পায়, খেজুরগুড়ের ক্ষেত্রেও তার ব্যাতিক্রম হয়নি।

খেজুরগুড় ব্যাপারীদের অধিকাংশই অভিমত ব্যক্ত করে বলেছেন, যে হারে গুড়ের চাহিদা বাড়ছে সেই হারে খেজুর গাছের সংখ্যা বাড়ছে না।

এলাকার কয়েকজন গাছি জানান, শীতের শুরু থেকেই খেজুর গুড়ের দাম চড়া। জ্বালানি খরচ অনেক বেশি। জ্বালানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় অনেকে কাঁচা রস ফেরি করে বাজারে বিক্রি করছেন। উৎপাদন ও হাটের আমদানির তুলনায় ক্রেতা তথা ব্যাপারি বেশি হওয়ায় গুড়ের দাম ঊর্ধ্বমুখী।

বাজারে আসা ব্যাপারিদের অভিযোগ, গুড়ের দাম বেশি হওয়ায় কিছু অসাধু গাছিরা চিনি ও খেজুরের রস একসাথে মিশিয়ে গুড় বানিয়ে বাজারে নিয়ে আসছে এতে করে খেজুর গুড়ের মান অনেক কমে যাচ্ছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে আমাদের পক্ষে খেজুরগুড় কেনাই দায় হয়ে যাচ্ছে। এর প্রতিকার হওয়া দরকার।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech