ব্যাংক খাত নিয়ে সতর্ক হতে হবে : তোফায়েল

  

পিএনএস ডেস্ক : ব্যাংক খাত নিয়ে সতর্ক হতে বলেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় তিনি এ আহ্বান জানান। এর আগে অনির্ধারিত আলোচনায় বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সাংসদ জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু ব্যাংক খাতের বর্তমান অবস্থা নিয়ে জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করেন।

সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় জিয়াউদ্দিন আহমেদের বক্তব্যের জের ধরে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমাদের উন্নয়নের সব সূচক পজিটিভ। তবে, ব্যাংকের ব্যাপারে আমাদেরকে আরও যত্নশীল হতে হবে। আরও সতর্ক হতে হবে। কারণ ব্যাংকিং খাত আমাদের অর্থনীতিতে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ব্যাংক খাত নিয়ে জিয়াউদ্দিনের বক্তব্যের সঙ্গে তিনিও একমত। তবে সরকার নীরবে বসে নেই। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে, আরও নেওয়া হবে।

এর আগে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী স্বীকার করেছেন বেসিক, সোনালী, অগ্রণী ও জনতা—এই চারটি ব্যাংক অত্যন্ত রুগ্‌ণ। তাদের নিজস্ব মূলধন নেই। আগে শুনতাম ঋণখেলাপি, এখন শুনছি ব্যাংকখেলাপি। ব্যাংক গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে পারছে না। এর দায়দায়িত্ব কে নেবে?’

জিয়াউদ্দীন বলেন, ব্যাংকগুলো খালি হয়ে যাচ্ছে। মানুষের টাকা চলে যাচ্ছে। সামান্য ঋণখেলাপির জন্য কৃষক, রিকশাচালক ও নিম্নবিত্তদের জেল খাটতে হচ্ছে। কিন্তু যারা ব্যাংককে খেলাপিতে পরিণত করেছে, তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

৩০০ বিধিতে অর্থমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করে জিয়াউদ্দীন বলেন, ‘আমাদের অর্থনীতিকে বাঁচান, শেয়ারবাজারকে বাঁচান, ব্যাংকিং খাতকে বাঁচান। দেশের মানুষ যাতে বেঁচে থাকতে পারে, সেই ব্যবস্থা নিন। তা না হলে আমরা কোনো দিনই মধ্যম আয়ের দেশে যেতে পারব না।’

বেক্সিমকো গ্রুপকে ঋণ পরিশোধ করার জন্য ২০২৭ সাল পর্যন্ত নতুন করে সুবিধা দেওয়ার সমালোচনা করেন জিয়াউদ্দীন। তিনি প্রশ্ন রাখেন, বেক্সিমকোর জন্য কি বিশেষ আইন? না হলে তারা কেন বিশেষ সুবিধা পাবে?

ফারমার্স ব্যাংকের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে জিয়াউদ্দীন বলেন, ফারমার্স ব্যাংক জলবায়ু ফান্ডের ৫০৮ কোটি টাকা ফেরত দিতে পারছে না। তারা এফডিআরের টাকা দিতে পারছে না, নিয়মিত অ্যাকাউন্টের টাকা দিতে পারছে না। এর দায় কে নেবে—এই প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, এর দায় সরকারকেই নিতে হবে। কারণ এটি তফসিলি ব্যাংক।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech