বকেয়া আদায়ে নিষ্ক্রিয় ডিপিডিসি

  



পিএনএস ডেস্ক: ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ডিপিডিসি) তেজগাঁও নেটওয়ার্ক অপারেশন অ্যান্ড কাস্টমার সার্ভিস দফতরে অভিযান চালিয়েছে দুদক। গ্রাহক হয়রানি, সংযোগ প্রদানে গড়িমসিসহ সম্প্রতি বেশকিছু অভিযোগ আসে সংস্থাটির হটলাইনে (১০৬)। এর পরিপ্রেক্ষিতে দুদক মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরীর নির্দেশে রোববার অভিযানে নামে সংস্থার একটি এনফোর্সমেন্ট টিম। অভিযানে অংশ নেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক মো. রাউফুল ইসলাম ও উপ-সহকারী পরিচালক খন্দকার নিলুফা জাহানসহ পুলিশ সদস্যরা।

অভিযানে প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন অনিয়মের সন্ধান পায় দুদক। সংশ্লিষ্ট নথি পর্যালোচনায় দুদক টিম দেখতে পায়, বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের মোটা অঙ্কের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকা সত্ত্বেও ডিপিডিসি কর্তৃপক্ষ তা আদায়ে কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে না। অনেকটা নিষ্ক্রিয় ডিপিডিসি।

দুদক টিম জানায়, চলতি বছরের জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকা ওয়াসার মডস জোন-৫ এর ৯ কোটি ৮৭ লাখ কোটি টাকার বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। অপরদিকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের (এফডিসি) ২ কোটি ১৭ লাখ টাকা এবং গণপূর্ত বিভাগের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে সোয়া ৪ কোটি টাকা।

এ ছাড়া গ্রাহক সেবার বিষয়েও ডিপিডিসির বেশ গাফিলতি পরিলক্ষিত হয়েছে। কাস্টমার সার্ভিস দফতরে আসা একজন সেবাপ্রার্থী দক্ষিণ মহাখালীর শামীম দুদক টিমকে জানান, তার প্রি-পেইড কার্ডটি মিটারে আটকে যায়। এখন তিনি সেটি ফেরত নিতে চাইলে ডিপিডিসির কর্মচারীরা তার কাছে এক হাজার টাকা দাবি করেন।

অপরদিকে গত মাসে ৫২ জন গ্রাহক নতুন সংযোগের জন্য আবেদন করেছেন। কিন্তু ৩১ জন গ্রাহকের সংযোগ স্থাপন করা হলেও বাকিদের ক্ষেত্রে বিলম্ব করা হচ্ছে। আর ডিপিডিসির রেকর্ডপত্রেই কয়েক শ’ অবৈধ সংযোগ তালিকা দেখতে পেয়েছে দুদক টিম। কিন্তু এসব সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণের কার্যকর ব্যবস্থা নেয়নি ডিপিডিসি। এসব বিষয়ে দ্রুত প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ এবং সেবার মান উন্নয়নে পরামর্শ দিয়েছে দুদক।

এ প্রসঙ্গে দুদক এনফোর্সমেন্ট অভিযানের সমন্বয়কারী ও মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী জানান, প্রাতিষ্ঠানিক সুশাসনের লক্ষ্যে সরকারি প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত নজরদারিমূলক অভিযান চালাচ্ছে দুদক। অভিযান শেষে ডিপিডিসিসহ যে কোনো রাষ্ট্রীয় সেবা পেতে দুর্নীতি বা হয়রানির শিকার হলে দুদকের অভিযোগ কেন্দ্রের হটলাইন ১০৬-এ ডায়াল করতে উপস্থিত সেবাপ্রার্থীদের পরামর্শ দেয়া হয়।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech