নন-এমপিও শিক্ষকদের ভাগ্য বিড়ম্বনা

  


পিএনএস ডেস্ক: এমপিওভুক্তির দাবি আদায় করতে গিয়ে রাজপথে পুলিশের আঘাতে প্রাণ গেছে শিক্ষক মোহাম্মদ সেকেন্দার আলীর। ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শিক্ষক- কর্মচারীদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে, টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছোড়ে। এ সময় শিক্ষকদের ছত্রভঙ্গ করতে ব্যবহার করা হয় বিষাক্ত পিপার স্প্রে। এতে দুই শতাধিক শিক্ষক আক্রান্ত হন। পরদিন ১০ জানুয়ারি কর্মসূচির জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বসলে পুলিশ আচমকা তাদের ওপর আক্রমণ চালায়। এ সময়ও বিষাক্ত পিপার স্প্রে ব্যবহার করা হয়। অনেকের সাথে গুরুতর আহত হন পটুয়াখালী জেলার দুমকি উপজেলার চরবয়রা মডেল বালিকা দাখিল মাদরাসার শিক্ষক মোহাম্মদ সেকেন্দার আলী (৪৫)। ১৪ জানুয়ারি মারা যান তিনি। এ ছাড়া অনেক শিক্ষক দীর্ঘ দিন ধরে বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হন।

এ দিকে গত এক দশক ধরে এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষকদের বারবার মুখোমুখি হতে হয়েছে রাজপথে পুলিশি নির্যাতনের। অপর দিকে শিক্ষামন্ত্রীসহ সরকারের উচ্চপদস্থ নেতৃবৃন্দ থেকে দেয়া আশ্বাস বাণী শেষ পর্যন্ত মিথ্যায় পরিণত হয়েছে শিক্ষকদের কাছে। তাই তারা এখন তাদের দাবি আদায়ে মরিয়া।

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড কিন্তু আমাদের মেরুদণ্ড ভেঙে দেয়া হচ্ছে। আমাদের হাতে কত ছেলেমেয়ে শিক্ষিত হয়ে বড় বড় চাকরি করছে, বেতন পাচ্ছে কিন্তু আমাদের বেতন নেই।

আমাদের কষ্টের জীবন দেখে এলাকার মুদিদোকানিও কাঁদেন কিন্তু শিক্ষামন্ত্রীর চোখে পানি নেই। কথাগুলো বলছিলেন, সাতক্ষীরার তেঁতুলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সৈয়দা রাবেয়া বসরী।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশনরত শিক্ষকদের বক্তব্য- শিক্ষায় বিনিয়োগ হলো সর্বোৎকৃষ্ট বিনিয়োগ। অনেক খাতে অনেক বিনিয়োগ বৃথা যায়, সুফল পাওয়া যায় না, কিন্তু শিক্ষায় বিনিয়োগ কখনো বৃথা যায় না। দীর্ঘকাল ধরে বাংলাদেশের একটি পরিচিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে বিভিন্ন সরকারের মেয়াদের শেষ দিকে শিক্ষকেরা তাদের বেঁচে থাকার ন্যূনতম চাহিদা ডাল-ভাতের দাবি নিয়ে রাজপথে আন্দোলনে নামেন বারবার। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ থেকে পাস করার পরও শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত হওয়ার কারণে সামান্য ভাতের দাবিতে রাজপথে দিনরাত পার করতে হয় অনশনরত অবস্থায়। মানুষ গড়ার কারিগর হিসেবে পরিচিত শিক্ষকদের এ দুরবস্থা জাতির জন্য লজ্জার মনে করেন শিক্ষকেরা। তারা বলেন, আমাদের অসম্মান করা জাতিরই অসম্মান। সূত্র: নয়া দিগন্ত

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech