আমি আনিনি, ছাত্রীরাই হলে ফিরেছে: হল প্রভোস্ট

  

পিএনএস ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল থেকে বের করে দেয়া ৩ ছাত্রীর শুক্রবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে হলে ফেরা নিয়ে হল প্রভোস্ট ড. সাবিতা রেজওয়ানা রহমান বলেছেন, ‘হলে আমি আনিনি, ওরা আমার হলে নিজেরাই এসেছে। মেয়েদেরকে কাউন্সিলিং করার জন্য অভিভাবকরা নিয়ে গিয়েছিল, আবার দিয়ে গেছে। এখন থেকে অভিভাবকরা তাদের মেয়েদের প্রতি খেয়ালও রাখবে।’

শুক্রবার(২০ এপ্রিল) হলচ্যুত ছাত্রীরা হলে ফিরলে প্রভোস্ট ড. সাবিতা রেজওয়ানা রহমান রাতে ব্রেকিংনিউজকে এসব কথা বলেন।

হল প্রভোস্ট বলেন, ‘৩ জন ছাত্রীর মধ্যে শুক্রবার দুপুরে দুই জন এবং বিকেল ৪টার দিকে আরেকজন হলে ফিরে এসেছে। এদের মধ্যে দুইজনের সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তঃফুটবল খেলায় অংশগ্রহণ করেছে।’

আন্দোলনকারীরা তাকে প্রত্যাহারের দাবি জানানোর প্রেক্ষিতে সাবিতা রেজওয়ানা বলেন, ‘কয়েকদিন আগে একটা মেয়ের রগ কাটা হয়েছে এমন গুজব ছড়ানো হলো, আরও অনেক বড় বড় ঘটনাও হয়ে গেলো। কিন্তু আমি চলতি মাসের ৮, ৯ ও ১০ এপ্রিল চিকিৎসার জন্য ভারতে অবস্থান করি। প্রত্যাহার কিংবা পদত্যাগ যে কেউ যে কাউকে চাইতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘শুক্রবার বিকেলে আমাদের কবি সুফিয়া কামাল হলের প্রায় সাড়ে পাঁচশ মেয়েদের একসাথে একটি মিটিং হয়েছে। যেখানে একটা কথা সবাই বার বারই বলেছে সেটা হলো- সুফিয়া কামাল হল নিয়ে এই কয়েকদিনে অনেক মিথ্যা ও গুজব ছড়ানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মেয়েরাই বলেছে আমরা আগের থেকে আরও সোচ্চার হবো। ’

প্রসঙ্গত, কবি সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশাকে কেন্দ্র করে গুজব ছড়ানো অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে সুফিয়া কামাল হল থেকে ৩ ছাত্রীকে বের করে দেয়া হয়।

ওই তিন ছাত্রী হলেন—গণিত বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শারমীন শুভ, থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী কামরুন্নাহার লিজা ও গণিত বিভাগের পারভীন। রাত ১০টার দিকে পারভীন ও লিজা এবং রাত ১২টার দিকে শুভকে হল ছাড়তে হয়। অভিভাবকরা এসে তাদের নিয়ে যান। এছাড়া পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রিমির বাবা ধামরাই থেকে সুফিয়া কামাল হলে উপস্থিত হন রাত সাড়ে ১২টার দিকে। পরে তিনি একাই হল অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech