‘অর্ধেক শিক্ষক নিজেদেরকে আদর্শ চরিত্র মনে করেন না’

  

পিএনএস ডেস্ক : অর্ধেকের মতো শিক্ষক নিজেদেরকে শিক্ষার্থীদের কাছে আদর্শ চরিত্র মনে করেন না। আর অধিকাংশ শিক্ষার্থীও মনে করে না শিক্ষক তাদের কাছে আদর্শ। তবে শিক্ষক প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের নৈতিকতা, মূল্যবোধ এবং সামাজিক ও আবেগিক বিকাশের ক্ষেত্রসমূহে গুরুত্ব দেওয়া হয় না। এমনকি শিক্ষকদের তাদের নিজস্ব মূল্যবোধ ও বিশ্বাস সম্পর্কে আত্মসমালোচনা করতে উৎসাহিত করা হয় না।

আজ বুধবার প্রকাশিত ‘বিদ্যালয়ের নৈতিকতা ও মূল্যবোধ’ শীর্ষক ‘এডুকেশন ওয়াচ ২০১৭’ তে এসব তথ্য উঠে আসে। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের এলজিইডি মিলনায়তনে গণসাক্ষরতা অভিযান আয়োজিত এই প্রকাশনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

গবেষণায় বলা হয়, ৩৪.০২ শতাংশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈতিকতা-মূল্যবোধ সমুন্নত করার ক্ষেত্রে পরিবেশগত অবস্থা গ্রহণযোগ্য। ২২.৫ শতাংশ বিদ্যালয়ে তা উন্নয়নের প্রয়োজন এবং ৪৩.৩ শতাংশ বিদ্যালয়ে এই নৈতিকতা-মূল্যবোধের পরিবশে গ্রহণযোগ্য নয়। একইভাবে ৩৪.১ শতাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এই পরিবেশ গ্রহণযোগ্য। বাকি ২৩.২ শতাংশে উন্নয়নের প্রয়োজন এবং ৪২.৭ শতাংশ বিদ্যালয়ে গ্রহণযোগ্য নয়।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সব বাসায় যদি সিসিটিভি লাগানো থাকতো তাহলে বোঝা যেতো শিশুদের প্রতি কেমন নির্যাতন হচ্ছে। অথচ সবাই শুধু স্কুলকে নির্যাতন মুক্ত হতে বলছে। আসলে শিশুদের জন্য সব জায়গায়ই নির্যাতন মুক্ত হতে হবে। সরকার একা চাইলে মূল্যবোধের পরিবর্তন আনতে পারবে না। সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech