ইবির ২ শিক্ষককে অব্যাহতি

  

পিএনএস : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) শিক্ষক নিয়োগে ২০ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগে দুই শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক দুই পদ থেকে সাময়িকভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার অফিস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদকে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে’র প্রভোস্ট পদ এবং বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. বাকী বিল্লাহ বিকুলকে ‘ছাত্র শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে’র (টিএসসিসি) পরিচালক পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, চাকুরিপ্রার্থীর সঙ্গে ২০ লাখ টাকা লেনদেনের অডিও ফাঁস এবং বিভিন্ন পত্রিকায় এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় ইতিমধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তদন্তের কাজে সচ্ছতার জন্য ওই দুই শিক্ষককে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই হলের প্রভোস্টের দায়িত্ব পালন করবেন হলের হাউজ টিউটর ও ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বখতিয়ার হাসান।

গত ১২ জুলাই ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের চারটি প্রভাষক পদে নিয়োগের জন্য বোর্ড অনুষ্ঠিত হয়। ওই বোর্ডের প্রার্থী ফারজানা আক্তার ও তার স্বামী শাহরিয়ার আল মামুনের সঙ্গে ২০ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগ ওঠে অধ্যাপক ড. আজাদ এবং সহযোগী অধ্যাপক ড. বাকী বিল্লাহ বিকুলের বিরুদ্ধে। পরে গত ১৪ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪১তম সিন্ডিকেট সভায় ৩৭জন শিক্ষক চূড়ান্তভাবে নিয়োগ পান। তবে উপেক্ষিত হন প্রার্থী ফারজানা আক্তার। পরে আর্থিক চুক্তির কথোপকথনের অডিও ফাঁস করে দেন তিনি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech