শোকদিবসের কর্মসূচির চিঠিতে বঙ্গবন্ধুর নামের বানানে ‘ভুল'!

  

পিএনএস, রাবি সংবাদদাতা : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের শোক দিবসের কর্মসূচির চিঠিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম ভুল বানানে লেখা হয়েছে। একই সঙ্গে চিঠিতে তাঁর নামের আগে ‘জাতির জনক' লেখা হয়েছে, সংবিধান অনুযায়ী যা হবে ‘জাতির পিতা'।

সোমবার (১৩ আগস্ট) রাত থেকে ওই চিঠি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে বিলি করা হয়েছে। তাতে সংগঠনটির নব-নির্বাচিত আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এম. মজিবুর রহমানের স্বাক্ষর রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষকরা বলছেন- শোক দিবসের কর্মসূচিতে বঙ্গবন্ধুর নামের বানান ও সঠিক পদবী ব্যবহার ভুল করা অমার্জনীয়, এতে শিক্ষকরা ক্ষুব্ধ। অবশ্যই সংগঠনের আহ্বায়ক কমিটিকে সভা করে বিষয়টি কীভাবে ভুল হলো- তা খতিয়ে দেখা উচিত।

জানা যায়, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ ১৫ আগস্ট শোক র্যালিসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক মজিবুর রহমান স্বাক্ষরিত শোক দিবসের অনুষ্ঠান বিবরণীর চিঠিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষকদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

ওই চিঠির প্রথমাংশে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের নাম সঠিক বানানে লিখলেও দ্বিতীয়াংশে ভুল বানানে লেখা হয়েছে। চিঠির দ্বিতীয়াংশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবর্তে বঙ্গবন্ধু শেখ ‘মজিবুর' রহমান লেখা হয়েছে। এছাড়া চিঠিতে বঙ্গবন্ধুকে ‘জাতির জনক’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। অথচ বাংলাদেশ সংবিধানে ৪(ক) অনুচ্ছেদে বঙ্গবন্ধুকে ‘জাতির পিতা' হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া জাতির পিতার প্রতিকৃতি সংরক্ষণ ও প্রণয়ন আইনে ‘জাতির জনক'-এর পরিবর্তে ‘জাতির পিতা'ব্যবহার করা হয়েছে। বিভিন্ন সরকারি পরিপত্রেও ‘জাতির পিতা’ শব্দদ্বয় ব্যবহার করা হয়। এ ব্যাপারে সরকারেরও সুস্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে।

এদিকে, অবহেলা ও উদাসীনতার কারণে এমন ভুল হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের একাধিক সদস্য। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংগঠনটির সিনিয়র একজন সদস্য বলেন, ‘এমন ভুল অত্যন্ত দুঃখজনক। যারা বঙ্গবন্ধুর আর্দশকে ধারণ করে, সেই আদর্শের উপর ভিত্তি করে রাজনীতি করে; তাদের এ ধরণের ভুল সত্যিই অমার্জনীয়। অবহেলা ও উদাসীনতা এখানে সুস্পষ্ট। কেন এমন ভুল হলো- সংগঠনের স্টিয়ারিং কমিটির সভা আহ্বান করে তা অবশ্যই খতিয়ে দেখা উচিত।’

ভুলের বিষয়ে জানতে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের নব-নির্বাচিত আহ্বায়ক অধ্যাপক মজিবুর রহমানের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায় নি। পরে আহ্বায়ক কমিটির নির্বাচিত সিনিয়র সদস্য ও সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি চিঠিটি সেভাবে এখনও দেখিনি। অনাকাঙ্খিতভাবে ভুল হতে পারে। দ্রুত আহ্বায়কের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech