অভিনেত্রী অহনার সাথে একি করল ট্রাকচালক!

  

পিএনএস ডেস্ক : নিজের গাড়িকে ধাক্কা দেওয়ায় ট্রাকচালকের সঙ্গে তর্ক করছিলেন অভিনেত্রী অহনা রহমান। একপর্যায়ে ট্রাকের দরজায় উঠে চালককে নামতে বলেন অহনা। কিন্তু বেপরোয়া গতিতে ট্রাক চালিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন চালক। দরজাতেই ঝুলতে থাকেন অহনা। বেশ কিছু দূর গিয়ে ট্রাকচালক সজোরে ‘ব্রেক’ করলে ছিটকে সড়কে পড়ে আহত হন অহনা।

গত বুধবার রাত সোয়া তিনটার দিকে উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ট্রাকটি আটক করলেও চালক ও চালকের সহকারীকে আটক করা যায়নি। আহত অবস্থায় অহনাকে উত্তরার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অহনা কোমরের হাড়ের সংযোগস্থলে আঘাত পেয়েছেন।

এ ঘটনায় অহনার খালাতো বোন লিজা ইয়াসমীন বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেছেন। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, পুরান ঢাকায় শুটিং শেষে অহনা ব্যক্তিগত গাড়ি চালিয়ে বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় তিনি তাঁর সঙ্গে ছিলেন। রাত সোয়া তিনটার দিকে উত্তরার ৭ নম্বর সেক্টরের ৭ নম্বর সড়কের সেতুর কাছে পাথরবোঝাই একটি ট্রাক বেপরোয়া গতিতে এসে অহনার গাড়িকে ধাক্কা দেয়।

লিজা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মোবাইলে বলেন, অহনা গাড়ি থেকে নেমে ট্রাকচালককে নামতে বলেন। ট্রাকচালক তর্ক করতে থাকেন। অহনা ট্রাকচালকের পাশের দরজায় উঠে যান। ট্রাকচালক ও তাঁর সহকারী দ্রুত ট্রাক নিয়ে পালাতে গিয়ে অহনার গাড়িকে আবারও ধাক্কা দেন। অহনাকে নিয়েই ট্রাকটি ১২ নম্বর সেক্টরের দিকে ছুটতে থাকে।

লিজা বলেন, অহনার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে ট্রাকচালক জোরে ব্রেক করেন। এতে ট্রাকটি উল্টে যায়। অহনা ছিটকে রাস্তায় পড়ে আহত হন। ট্রাকচালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে যান।

ট্রাকচালকের সঙ্গে অহনার বাগ্‌বিতণ্ডার ঘটনা ভিডিও করেন লিজা। ভিডিওটি ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, অহনা বারবার ট্রাকচালককে নেমে আসতে বলছেন। জবাবে ট্রাকচালক বলেন, ‘আমি টার্নিং নিচ্ছিলাম, আপনি বাঁয়ে ঢুকলেন কেন?’ অহনা বলেন, ‘তুই কোথা থেকে টার্নিং নিচ্ছিলি? তোরে ইন্ডিকেটর দেওয়া হইসে, হর্ন দেওয়া হইসে। গাড়ির ভেতরে নেশা করতেছিস আর ট্রাকে চালাচ্ছিস।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উত্তরা পশ্চিম থানার উপপরিদর্শক মো. হুমায়ুন কবীর প্রথম আলোকে বলেন, ট্রাকচালক ও সহকারীকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

অহনার এ ঘটনার মতো রাজধানীর সড়কে প্রতিনিয়তই নৈরাজ্য হচ্ছে। গত বছরের আগস্টে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরও রাজধানীর সড়কে নৈরাজ্য বন্ধ হয়নি। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার দেওয়া প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন হয়েছে খুবই কম। নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে গঠিত কমিটির দেওয়া নির্দেশনাগুলোও পুরোপুরি বাস্তবায়িত হচ্ছে না। এ জন্য রাজধানীর সড়কে শৃঙ্খলাও ফেরেনি।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক সামছুল হক প্রথম আলোকে বলেন, সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাগুলো দায় এড়ানোয় নির্দেশনাগুলো কাগজে-কলমে রয়ে গেছে। সড়কের নিরাপত্তার সঙ্গে সরকারের ভাবমূর্তির বিষয়টি যুক্ত। এরপরও নির্দেশনা কেন বাস্তবায়িত হলো না, সেটির উত্তর খুঁজে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিতে হবে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech