যেভাবে কালো ঘাড় ফর্সা করবেন মাত্র ১০ মিনিটে

  

পিএনএস ডেস্ক : অনেকেরই দেখা যায়, চেহারার তুলনায় ঘাড় অনেক কালো থাকে । ঘাড় ফর্সা করার জন্য অনেকে নিয়মিত পার্লারে যান। কিন্তু কিছু দিন পর আবার ঠিকই ঘাড় কালো হয়ে যায়। এ জন্য অনেকে চিন্তিত।

কিভাবে কালো ঘাড় ফর্সা করে তুলতে পারবেন? আজকে আপনাদের কালো ঘাড় ফর্সা করার কিছু উপায় বলব। এটি এমন প্রক্রিয়ায় আপনার গলার কালো দাগ দূর করবে। যা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।

মাত্র ১০ মিনিটে আপনি আপনার গলার যেকোনো কালো দাগ দূর করতে পারবেন-

উপাদান:

-কাঁচা দুধ
-চন্দন
-বেসন
-লেবুর রস

প্রথমে লাগবে কাঁচা দুধ। কাঁচা দুধে প্রচুর পরিমানে ল্যাকটিক এসিড থাকে। যা আপনার শরীরের যেকোনো অংশ থেকে কালো দাগ দূর করতে সহায়তা করে। এই দুধে এমন কিছু উপাদান থাকে, যা আপনার কালো দাগ দূর করতে এবং ডেড সেল দূর করতে সাহায্য করে।

আপনি ২ চা চামচের মত খাটি দুধ নিয়ে নিবেন। এর মধ্যে কিন্তু গুড়া দুধ নিলে হবে না। এর মধ্যে আপনি আর একটি উপাদান নিবেন। তা হল চন্দন কাঠের গুড়া।

আপনি যদি কাঁচা দুধ ও চন্দন কাঠের গুড়ো আপনার শরীরে লাগিয়ে রাখেন। তবে কিন্তু এ দুইটি উপাদান আপনার শরীরের যেকোনো কালো দাগ শুষে নিবে। এ উপাদান গুলো যখন আপনার ত্বকের কালো দাগ শুষে নিবে, তখন আপনার ত্বক উজ্জ্বল ও সাদায় পরিনত হবে।

তবে এর কার্যকারিতা বাড়ানোর জন্য আরো একটি উপাদান নিতে হবে। বাজারে ত্বকের কালো দাগ দূর করার অনেক প্যাক পাওয়া যায়। ওই প্যাকেও কিন্তু কাঁচা দুধ ও চন্দনের গুড়া থাকে । এগুলো শরীরে, বগলে বা যে কোনো কালো দাগের ওপর লাগালে খুব ভালো কাজ করে।

কাঁচা দুধের মধ্যে হাফ চা চামচের মত চন্দনের গুড়া নিয়ে নিবেন। তারপর আপনি বেসন বা চালের গুড়া যেকোনো একটি নিয়ে নিবেন। বেসনে এমন কিছু উপাদান আছে, যা আপনার কালো দাগ গুলো নরম করে দেয়। আপনার শরীরে ঘামের কারণে যে কালো দাগগুলো হবে তা আপনি বেসন দিয়ে দূর করতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি সব সময় চেষ্টা করবেন যেন আপনার গলায় ঘাম জমে না যায়। ঘাম জমলে সেখানে কালো দাগ পড়ে। আপনি ঘেমে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে আপনার গলা ধুয়ে নিবেন। বেশি সময় গলায় ঘাম জমে থাকতে দিবেন না।

আপনি দেড় চামচের মত বেসনের গুড়া নিয়ে নিবেন। এর মধ্যে আরো নিবেন ভিটামিন সি বা সাইট্রিক এসিড দ্বারা পরিপূর্ন লেবু। এক চা চামচের মত লেবুর রস নিয়ে নিবেন। খেয়াল রাখবেন লেবুর রস যেন বেশি না হয়। বেশি হলে উপাদানগুলো যখন আপনি ঘসে ব্যবহার করবেন তখন জ্বালা পোড়া করতে পারে।

এবার সব উপাদানগুলো এক সাথে মিশিয়ে পেস্টের মত করে নিবেন। এ পেস্টটি আপনি যেকোনো এয়ার টাইট কন্টিনারে রেখে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে ৩ দিনের বেশি রাখা ঠিক হবে না। তাই প্যাকটি ব্যবহার কারার আগে বানিয়ে নিলে ভালো হবে।

এ প্যাকটি গলায় ব্যবহার করার পূর্বে আপনি গলা ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো ভাবে পরিষ্কার করে নিবেন। যাতে সেখানে ধূলা-বালি, ময়লা জমে না থাকে। তারপর আপনি ৩ আঙ্গুলে প্যাকটি লাগিয়ে নিন এবং আপনার গলায় ভালো ভাবে ম্যাসাজ করুন। এমন ভাবে ম্যাসাজ করবেন, যাতে আপনার গলার প্রতিটা লোম কূপের গোড়ায় পেস্ট পৌছে যায়।

আপনি এ পেস্টটি ১০ মিনিট আপনার গলায় লাগিয়ে রাখবেন। ১০ মিনিট পর দেখবেন প্যাকটি একে বারে শুকিয়ে গেছে। শুকিয়ে গেলে প্যাকটি টানটান হয়ে যাবে। এ ভাবে যদি আপনি প্রত্যেক দিন ব্যবহার করেন তবে আপনার গলার কালো দাগ দূর হবে।

আপনি যদি প্যাকটি প্রতিদিন দুপুর বেলা গোসলের পূর্বে ব্যবহার করেন তবে ভালো ফল পাবেন। আপনি চাইলে প্যাকটি রাতেও ব্যবহার করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে ঘুমানোর আগে যেকোনো ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে ঘুমাবেন। এ ভাবে যদি আপনি ১৫ থেকে ২০ দিন পেস্টটি ব্যবহার করেন, তবে আপনার গলা বা ঘাড়ের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech