‘গাজায় ইসরাইলি নিষেধাজ্ঞায় সংঘাতকে আরো তীব্র করবে’

  


পিএনএস ডেস্ক: অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ‘কারেম শালোম’ ক্রসিং দিয়ে বাণিজ্যিক পণ্যের আনা-নেয়া বন্ধের ইসরাইলি সিদ্ধান্ত হামাসের সঙ্গে দ্বন্দ্বকে আরো বাড়িয়ে তুলতে পারে বলে দেশটিকে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

মঙ্গলবার জাতিসংঘে মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়ার বিশেষ সমন্বয়কারী নিকোলাই ম্লাদেনভ এই সতর্ক বার্তা উচ্চারণ করেনভ।

তিনি বলেন, ‘সংঘাত ও মুখোমুখি অবস্থা থেকে প্রত্যেকেরই পিছিয়ে আসা উচিৎ।’

গাজার প্রধান বাণিজ্যিক ক্রসিংয়ের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই বক্তব্য দিলেন।

কমার্শিয়াল বর্ডার ‘কারেম সালোম’ ক্রসিং দিয়ে গাজার বাসিন্দাদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করা হতো।

মঙ্গলবার সকাল থেকেই ওই ক্রসিং দিয়ে খাদ্য, ওষুধ ও জ্বালানি পণ্য ছাড়া অন্য কোনো পণ্য হামাস শাসিত গাজা উপত্যকায় প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। পরবর্তী নোটিস না আসা পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

গত চার মাস ধরে গাজা থেকে উড়ে আসা ঘুড়ি ও বেলুনে দক্ষিণ ইসরাইলে কয়েকশ’ একর জমির ফসল পুড়ে যাওয়ার পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে ইসরাইল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

সোমবার ইসরাইলি প্রতিরক্ষার বাহিনীর (আইডিএফ) এক ঘোষণা বলা হয়েছে, ‘ইসরাইল গাজা স্ট্রিপে মানবিক পরিস্থিতি উন্নত করতে চায়। কিন্তু গাজা থেকে হামাসের অব্যাহত ঘুড়ি উড়ানো ও রকেট উৎক্ষেপণের কারণে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছ।’

এতে সতর্ক করে দিয়ে বলা হয়, ‘এই ধরনের কর্মকাণ্ড চলতে থাকলে, তাদের এই পদক্ষেপ অব্যাহত থাকবে এবং আরো তীব্র করা হবে।’

মঙ্গলবার ম্লাদেনভ বলেন, ‘কারেম শালোম ক্রসিং দিয়ে মৌলিক মানবিক সরবরাহ ছাড়া অন্য কোনো পণ্য আমদানি-রপ্তানি বন্ধ রাখার ইসরাইলি সিদ্ধান্তের ফলাফল নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন।’

তিনি আরো বলেন, ‘মানবিক সহায়তা-ব্যবসা ও বাণিজ্যের কোনো বিকল্প নয়। আমি এই সিদ্ধান্ত বাতিল করার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

এসময় তিনি সংঘাতের পথ পরিহারে হামাস ও ইসরাইল উভয়ইকে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান। সূত্র: জেরুজালেম পোস্ট

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech