সন্ধান মিললো প্রাচীন উপাসনালয়ের

  


পিএনএস ডেস্ক: ইউরোপের রুগ্ন মানুষ তুরস্কের শানলিউর্ফা শহরের ১৫ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে এক পাহাড়ের চূড়ায় আবিষ্কৃত গোবেকলি তেপে সম্প্রতি স্থান করে নিয়েছে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের তালিকায়।

এই স্থাপনাটি এখনও পর্যন্ত আবিষ্কৃত সবচেয়ে প্রাচীন মানবনির্মিত উপাসনালয়।

ধারণা করা হয়, প্রায় ১২ হাজার বছর আগে একদল শিকারি সম্প্রদায় এই উপাসনালয়টি নির্মাণ করে। তখন এ অঞ্চলের আবহাওয়া ও মাটি ছিল কৃষিবান্ধব। তাই আফ্রিকা ও পূর্ব-ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের শিকারিরা বসবাসের জন্য তুর্কিকে বেছে নিয়েছিল। তুর্কি ভাষায় গোবেকলি তেপে অর্থ ‘উদর বিশিষ্ট পাহাড়’। নব্যপ্রস্তর যুগের এ স্থাপনাটি ওই যুগ সম্পর্কে মানুষের ধারণা সম্পূর্ণ পাল্টে দিয়েছে।

অবাক করা প্রত্নতাত্ত্বিক আবিষ্কারের মধ্যে গোবেকলি তেপে অন্যতম। ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্বে এর গুরুত্বও অনেক। এরপরেও এই স্থাপনাটি সম্পর্কে অনেকেরই অজানা। আরও অনেক বিস্ময়কর স্থাপনা যেমন- মিশরের পিরামিড, স্টোন হেঞ্জ বা চীনের প্রাচীরের মতো খ্যাতিও নেই বিশ্বের প্রাচীনতম এ উপাসনালয়টির।

তাই বিশ্বের কাছে গোবেকলি তেপের পরিচিতি, ইতিহাস ও গুরুত্ব তুলে ধরতে টেলিভিশন অনুষ্ঠান নির্মাণ করছেন তুর্কি বংশোদ্ভূত মার্কিন সার্জন ও লেখক মেহমেত অজ। তাই প্রাচীন এই স্থাপনাটিকে আরও ভালোভাবে বুঝতে বর্তমানে তুরস্কে অবস্থান করছেন অজ। ঘুরে ফিরে ভালোমতো দেখে নিচ্ছেন গোবেকলি তেপের প্রতিটি কোণা।

সংবাদমাধ্যমকে অজ বলেন, আমি চাই গোবেকলি তেপের গুরুত্ব গোটা বিশ্ব জানুক। আমরা যদি প্রাচীন এ স্থাপনাটির তাৎপর্য বুঝতে পারি, তবে আমরা ভবিষ্যৎ পাল্টে দিতে পারবো। বর্তমানে আমরা কেউ কারো চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলি না। প্রযুক্তি আমাদের যোগাযোগকে পাল্টে দিয়েছে। একে-অপরের প্রতি বিশ্বাস কমিয়ে দিয়েছে। কিন্তু ১০ হাজার বছর আগে যারা প্রথম মূর্তি নির্মাণ শুরু করেছিল, তারা মানবতার সূচনা করেছিল, একে-অপরের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করতে শিখেছিল।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech