শান্তির বার্তা নিয়ে উত্তর কোরিয়ায় দ.কোরীয় নেতা

  

পিএনএস ডেস্ক : কোরিয়ান শান্তি চুক্তিকে এগিয়ে নিতে এবং পিয়ংইয়ং ও ওয়াশিংটনের মধ্যকার পরমাণু-নিরস্ত্রীকরণ আলোচনাকে পুনরায় জোরদার করার লক্ষ্যে আলোচনার জন্য উত্তর কোরিয়ায় পৌঁছেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে তিন দিনের এই সম্মেলনে অংশ নিতে মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) পিয়ংইয়ংয়ে পৌঁছান মুন।

যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যকার দীর্ঘদিনের অচলাবস্থার পর গত জুনে সিঙ্গাপুরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং-উনের মধ্যে শীর্ষ সম্মেলনের পর তৃতীয় বারের মতো দুই কোরিয়ার নেতার মধ্যে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

গত এপ্রিলে প্যানমুনজোমের ‘ট্রাস গ্রামে’ দুই কোরিয়ার নেতার মধ্যে প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ওই সময় তারা ওই বৈঠককে ‘শান্তির নতুন যুগ’ বলে অভিহিত করেছিল। ১৯৫০ সালে কোরিয়ান যুদ্ধের পর উত্তর কোরিয়ার প্রথম নেতা হিসেবে কিম দক্ষিণ কোরিয়ায় পা রাখেন। তাদের দ্বিতীয় আন্তঃকোরীয় বৈঠকটি হয় গত মে মাসে ট্রাম্পের সঙ্গে শীর্ষ সম্মেলনের সময়।

এছাড়াও এই আলোচনা এমন এক সময়ে শুরু হচ্ছে, যখন চলতি সপ্তাহেই উত্তর কোরিয়া তার৭০তম জাতীয় বার্ষিকী উদযাপন করেছে এবং আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক মিসাইল ছাড়াই তার বার্ষিক সামরিক প্যারেড আয়োজন করে; যা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কর্তৃক প্রশংসিত হয়েছে।

বৈঠকে মুন সম্ভবত আরও আন্তঃকোরীয় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির প্রস্তাব দেবেন, যেটি নিষেধাজ্ঞার কারণে এখনও পর্যন্ত একটি বাধা হিসেবে দেখা হচ্ছে।

টেবিলে কী শান্তি চুক্তির বিষয়বস্তু?
সোমবার মুন বলেছিলেন, তিনি বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ‘অপরিবর্তনীয়, স্থায়ী শান্তি’ নিয়ে কিমের সঙ্গে অন্তরঙ্গ আলোচনা করতে চান। মুন তার উপদেষ্টাদের বলেছেন, ‘আমি শান্তি অর্জন করতে চাই।’

কোরীয় যুদ্ধ শেষ করার জন্য একটি স্থায়ী শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করার জন্য চলতি বছর উভয় কোরিয়াই ইঙ্গিত দিয়েছিল। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের ব্যাপারে উপযুক্ত প্রমাণ ছাড়াই আনুষ্ঠানিক শান্তি চুক্তির বিষয়টি নিরুৎসাহিত করে যুক্তরাষ্ট্র। সূত্র: টাইম

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech