স্বামীর ঘরের দরজা ভাঙচুর করায় স্ত্রীর জরিমানা

  

পিএনএস ডেস্ক: স্বামীর ঘরের দরজা ভাঙচুর করার অপরাধে এক নারীকে ৬৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। ঘরের দরজা ভাঙার অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেছিলেন ওই স্বামী। পরে আদালতে ওই নারী দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তাকে জরিমানা করা হয়।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাস আল খাইমাহ এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। আদালতের নথিতে দেখা যায়, স্বামীর কাছে ডিভোর্স চেয়ে আইনি নোটিস পাঠিয়েছিলেন স্ত্রী। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে তিনি স্বামীর কাছে ডিভোর্স চেয়েছিলেন। আদালতকে ওই নারী বলেন, সে (স্বামী) সবসময় আমাকে মারপিট করতো।

তিনি বলেন, ঘরের দরজা যেদিন ভাঙা হয়েছে বলে তার স্বামী অভিযোগ করেছেন; সেইদিন তিনি হাসপাতালে ভির্তি ছিলেন। ‘আমার কাছে মেডিক্যাল রিপোর্ট আছে, যেখানে আমাকে নির্যাতন ও আমার গর্ভধারণের সময় স্বামীর মারপিট এবং নিষ্ঠুর নির্যাতনের কারণে রক্তক্ষরণেরও প্রমাণ আছে।’

নারীর স্বামী আদালতকে বলেন, ওই দিন বাড়িতে ফেরার পর স্ত্রী তাকে তালাক দেন এবং বাইরে থেকে ঘরের ভেতর তাকে তালাবদ্ধ করে রাখেন। সন্তানদের নিজের সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার জন্য ঘরের দরজা ও বাড়ি-ঘরে ভাঙচুর করেন তার স্ত্রী।

পরে স্বামীর অভিযোগের ভিত্তিতে রাস আল খাইমাহর পাবলিক প্রসিকিউটরের কার্যালয় থেকে ওই নারীকে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তবে আদালতে হাজির হয়ে ওই নারী বলেন, ঘরের দরজা আগে থেকেই ভাঙা ছিল।

বাদির আইনজীবী আদালতকে বলেন, ওই নারীর স্বামীর অভিযোগ সম্পূর্ন ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা। পারিবারিক কলহের জেরে এই অভিযোগ আনা হয়েছে। নারীর আইনজীবী আদালতকে তালাকের আবেদনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার আহ্বান জানান।

তবে তদন্তে ওই নারী দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আদালত তাকে তিন হাজার আমিরাতি দিরহাম (বাংলাদেশি প্রায় ৬৮ হাজার টাকা) জরিমানা করেন।
সূত্র: খালিজ টাইমস।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech