রেকর্ডের পথে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন

  


পিএনএস ডেস্ক: অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের আন্তর্জাতিক বাজারে নিজেদের প্রভাব আগেই পোক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এখন প্রাকৃতিক গ্যাসের বাজারেও প্রভাব বাড়ানোর পরিকল্পনা এগিয়ে নিচ্ছে ওয়াশিংটন। এর অংশ হিসেবে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন ও রফতানি কয়েক গুণ বাড়িয়েছে মার্কিন প্রশাসন। এ ধারাবাহিকতায় চলতি বছর শেষে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাকৃতিক গ্যাসের সম্মিলিত উত্তোলন রেকর্ড সর্বোচ্চে পৌঁছতে পারে। একই সঙ্গে দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির অভ্যন্তরীণ ব্যবহার ও আন্তর্জাতিক বাজারে রফতানিতেও নতুন রেকর্ড হতে পারে। মার্কিন এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (ইআইএ) সর্বশেষ প্রকাশিত শর্টটার্ম এনার্জি আউটলুকে এ সম্ভাবনার কথা উঠে এসেছে। খবর রয়টার্স, এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল ও অয়েলপ্রাইসডটকম।

যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলনকারী দেশ। ইআইএর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে ৭ হাজার ৪৭৭ কোটি ঘনফুট প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন হয়েছিল। প্রবৃদ্ধির ধারাবাহিকতায় চলতি বছর শেষে দেশটির কূপগুলো থেকে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় উত্তোলন আরো বেড়ে ৮ হাজার ২৬৭ কোটি ঘনফুটে দাঁড়াতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সেই হিসাবে, এক বছরের ব্যবধানে দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় উত্তোলন বাড়তে পারে ৭৯০ কোটি ঘনফুট। এটা যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলনের সর্বোচ্চ রেকর্ড।
এর আগে ২০১৫ সালে দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন হয়েছিল। সেই সময় দেশটির কূপগুলো থেকে প্রতিদিন সব মিলিয়ে ৭ হাজার ৪১৫ কোটি ঘনফুট প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন হয়েছিল। আগামী বছর নাগাদ যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন গড়ে ৮ হাজার ৭৭৩ কোটি ঘনফুট প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন বাড়ানোর পেছনে দুটি কারণ চিহ্নিত করেছেন বিশ্লেষকরা। প্রথমত, ক্রমবর্ধমান অভ্যন্তরীণ চাহিদা পূরণ। দ্বিতীয়ত, জ্বালানি বাজারে নিজস্ব প্রভাব বাড়ানোর জন্য বাড়তি প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানির পরিকল্পনা এগিয়ে নেয়া। ইআইএর সর্বশেষ প্রকাশিত শর্টটার্ম এনার্জি আউটলুকে বলা হয়েছে, ২০১৮ সাল শেষে যুক্তরাষ্ট্রে প্রাকৃতিক গ্যাসের দৈনিক গড় চাহিদা দাঁড়াতে পারে ৮ হাজার ৫৮ কোটি ঘনফুটে। এটাই যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে জ্বালানি পণ্যটির সর্বোচ্চ ব্যবহার।

২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন গড়ে ৭ হাজার ৪২৭ কোটি ঘনফুট প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় ব্যবহার বাড়তে পারে ৬৩১ কোটি ঘনফুট। আর ২০১৯ সাল নাগাদ এর পরিমাণ দাঁড়াতে পারে দৈনিক ৮ হাজার ৪২ কোটি ঘনফুটে।
এদিকে বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে নিজেদের প্রভাব আরো পোক্ত করার জন্য প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানি বাড়িয়ে দিয়েছে বিশ্বের সপ্তম শীর্ষ প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানিকারক দেশ যুক্তরাষ্ট্র। ২০১৭ সালে দেশটি থেকে দৈনিক গড়ে ৩৪ কোটি ঘনফুটের সামান্য বেশি বা ৯৬ লাখ ৩০ হাজার ঘনমিটার প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানি হয়েছে। ২০১৮ সাল শেষে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় রফতানি বেড়ে ২০০ কোটি ঘনফুটে দাঁড়াতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে ইআইএ। দেশটির ইতিহাসে এটাই প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানির সর্বোচ্চ রেকর্ড হবে। প্রতিষ্ঠানটির সাম্প্রতিক পূর্বাভাস অনুযায়ী, পরের বছর দেশটি থেকে প্রাকৃতিক গ্যাসের দৈনিক গড় রফতানি আরো বেড়ে ৫৫০ কোটি ঘনফুটে দাঁড়াতে পারে। এর অংশ হিসেবে চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রতিদিন গড়ে ৮৭ কোটি ঘনফুট বা প্রায় ২ কোটি ৪৬ লাখ ৪০ হাজার ঘনমিটার প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানি হয়েছে।


পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech