প্রাক্তন সেনাকর্তা গুজরাট দাঙ্গা নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য দিলেন

  


পিএনএস ডেস্ক: গুজরাট দাঙ্গায় সেনা মোতায়েন নিয়ে বিশেষ তদন্তকারী দল ‘মিথ্যা’ রিপোর্ট দিয়েছিল বলে দাবি প্রাক্তন সেনাকর্তা জামিরউদ্দিন শাহের। তিনি জানান, আমদাবাদে পৌঁছানোর পরে এক দিন যানবাহন না পাওয়ায় দাঙ্গা-বিধ্বস্ত এলাকায় পৌঁছাতে পারেনি সেনা।

প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট জেনারেল জামিরউদ্দিনের দাবি, গুজরাটের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে দ্রুত যানবাহন চেয়েছিলেন তিনি। অনুরোধ জানানোর সময়ে প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জর্জ ফার্নান্ডেজও হাজির ছিলেন। কিন্তু তাতেও এ নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহন করেনি প্রশাসন।

সেদিন দিল্লিতে জামিরউদ্দিনের স্মৃতিকথা প্রকাশ করেন প্রাক্তন উপ-রাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি। ওই স্মৃতিকথায় গুজরাট দাঙ্গা সামলাতে ‘অপারেশন আমন’-এর কথাও বিস্তারিত জানিয়েছেন জামিরউদ্দিন। ওই অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনিই। সেই বিবরণ নিয়েই ফের বিতর্ক শুরু হয়েছে।

প্রাক্তন সিবিআই অধিকর্তা আর কে রাঘবনের নেতৃত্বাধীন বিশেষ তদন্তকারী দল মোদীকে ‘ক্লিনচিট’ দিয়েছে। সেই দলের রিপোর্টে জানানো হয়েছিল, দাঙ্গা সামলাতে সেনা মোতায়েন করতে দেরি করা হয়নি। সিট রিপোর্টে জানিয়েছে, অতিরিক্ত মুখ্যসচিব (স্বরাষ্ট্র) অশোক নারায়ণের সাক্ষ্য থেকে এ কথা জানা গেছে। কিন্তু জামিরউদ্দিনের দাবি, রিপোর্টে একেবারে মিথ্যা কথা লেখা হয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, ২০০২ সালের ১ মার্চ সকাল সাতটার সময়ে আমদাবাদে ৩ হাজার সেনা পৌঁছায়। দুপুর ২ টার সময় জর্জ ফার্নান্ডেজের উপস্থিতিতে নরেন্দ্র মোদীর কাছে সেনাদের জন্য যানবাহন চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এক দিন পরে যানবাহন ও অন্যান্য উপকরণ হাতে পেয়েছিলেন জামিরউদ্দিন। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই পরিস্থিতি সামলায় সেনা।

জামিরউদ্দিনের বক্তব্য, ‘পুরা ঘটনার কথা অভিযান-পরবর্তী রিপোর্টে লেখা রয়েছে।’ জামিরউদ্দিনের বক্তব্য সমর্থন করেছেন তৎকালীন সেনাপ্রধান জেনারেল এস পদ্মনাভনও। প্রাক্তন সেনা অফিসারের কথায়, ‘সেনা মোতায়েনে দেরি প্রশাসনের ব্যর্থতা।’ তবে প্রাক্তন উপ-রাষ্ট্রপতি আনসারি প্রশ্ন তোলেন, ‘প্রশাসন ব্যর্থ হলে দায়টা কার?’ বিশেষ তদন্তকারী দলের প্রাক্তন প্রধান রাঘবন মন্তব্য করতে চাননি।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech