শবে বরাতে পুরান ঢাকায় বিশেষ আয়োজন

  

পিএনএস ডেস্ক : শবে বরাত পালন পুরান ঢাকার ঐতিহ্যেরই অংশ। এই দিনের উৎসব আয়োজন ও আনুষ্ঠানিকতা আনন্দময়। তারাবাতি, আগরবাতি, মোমবাতি জ্বালানোসহ পুরো ঢাকা শহর সেজে ওঠে আলোকসজ্জায়।

শবে বরাত পালন আর প্রস্তুতিতে কী করা হয়, তা দেখতে যেতে হবে পুরান ঢাকায়।

সেই আদিকাল থেকেই বিশেষ মর্যাদায় শবে বরাত পালন করে পুরান ঢাকাবাসী। এই দিনকে কেন্দ্র করে নতুন পোশাক কেনা ও পরার চল রয়েছে। রায়সাহেব বাজার, বেচারাম দেউড়ি, নাজিরাবাজার, কলতাবাজার, বেগমগঞ্জ, চকবাজারসহ পুরো পুরান ঢাকায় একই দৃশ্য দেখতে পাবেন। শবে বরাতের আগের দিন পুরো পুরান ঢাকার প্রতিটি মসজিদে মসজিদে শিন্নি বিতরণের জন্য গরু কেনা হয়। রান্না করা হয় বিরিয়ানি।

কোনো কোনো মসজিদে এশার নামাজের পর মোনাজাত করে বিরিয়ানি বিতরণের রেওয়াজ রয়েছে, আবার কোথাও কোথাও ফজরের নামাজের পর। আবার কোনো কোনো মসজিদ বা এলাকায় পরদিন আসরের নামাজের পর স্থানীয় কবরস্থানে বিশেষ মিলাদ মাহফিল ও মোনাজাত শেষে তবারক বিতরণের রেওয়াজ দেখা যায়।

প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই শবে বরাতের বিকেল থেকে দরিদ্রদের মধ্যে বিশেষ খাবার বিতরণ করা হয়। সামর্থ্য অনুযায়ী আটা বা চালের রুটি তৈরি করে দেন সবাই।

বেকারি, কনফেকশনারিসহ বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় থাকে হালুয়া-রুটির বিশেষ পদ। একসময় পুরান ঢাকার শবে বরাতের সব আয়োজন ছিল চকবাজারকেন্দ্রিক। চকবাজার বড় মসজিদের সামনে বিভিন্ন পসরা নিয়ে বসতেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। দিনে দিনে ব্যাপকতা বেড়ে যাওয়ায় রাস্তার মোড়ে মোড়ে রুটি বিক্রি শুরু হয়।

বিশেষ করে সাতরওজা এলাকার আনন্দ বেকারি, চকবাজারের বোম্বে সুইটস অ্যান্ড কাবাব, রায়সাহেব বাজার এলাকার ইউসুফ বেকারি, বংশালের আল-রাজ্জাক কনফেকশনারি, ইসলামপুরের কুসুম বেকারিসহ সব বেকারির বিশেষ আয়োজন চোখে পড়ার মতো।

এসব রুটির কোনো কোনোটা প্রাণীর আকৃতির হয়ে থাকে। রুটির গায়ে কাচ বা পুঁতি বসিয়ে সাজানো হয়। যাকে বলা হয় শবে বরাতের বরাতি রুটি। রুটির সঙ্গে হালুয়া বিক্রি হয় নানা রকমের। সঙ্গে গোটা মুরগি, নানা ধরনের কাবাব ও টানা পরোটা পাওয়া যায়।

রুটি, হালুয়া ও মাংসের বিভিন্ন পদ বড় বড় সব ট্রেতে করে পাঠানো হয় প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনের বাড়ি। ছেলে বা মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে রুটি-হালুয়াসহ নতুন পোশাক বিভিন্ন রকমের ডালায় সাজিয়ে পাঠানোর রেওয়াজ রয়েছে পুরান ঢাকায়।

সে জন্য ঘরে ঘরে তৈরি হয় বাহারি সব হালুয়া। হালুয়ার মধ্যে রয়েছে পেঁপে, চালকুমড়া, মিষ্টি কুমড়া, ডাল, ময়দা, সুজি, গাজরসহ বিভিন্ন প্রকারের হালুয়া। পোলাও, ভুনা খিচুড়ি, কাচ্চি বিরিয়ানিও রান্না করেন কেউ কেউ।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech