তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ৭ মামলা চলমান: আইনমন্ত্রী - আইন-আদালত - Premier News Syndicate Limited (PNS)

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ৭ মামলা চলমান: আইনমন্ত্রী

  

পিএনএস : আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলাসহ ৭টি মামলা চলমান রয়েছে। এরমধ্যে দু’টি মামলায় ৭ বছর ও ১০ বছর করে সাজা হয়েছে।

জাতীয় সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে বুধবার টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে মহিলা এমপি ফজিলাতুন নেসা বাপ্পীর প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

আইনমন্ত্রীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের দায়ে কাফরুল থানায় দায়ের হওয়া মামলা (নং ১৭/২০০৭) চলমান রয়েছে। এই মামলায় তারেক রহমান ছাড়াও তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান ও শাশুড়ি সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু আসামি হিসেবে অভিযুক্ত হয়েছেন। মামলাটি আদালতে নিষ্পত্তির অপেক্ষায় আছে।

একইসঙ্গে দ্রুত বিচার ট্রাইবুন্যালে তার বিরুদ্ধে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা (নং ২৯/১১ ও ৩০/১১) ও ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে দায়ের করা (নং-১৫৫৮২/১৭) রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা চলমান রয়েছে।

এছাড়া ঢাকার সিএমএম কোর্টে ৪টি মানহানি মামলা (৪৯৯/৫০০ ধারায়) চলমান রয়েছে। এই মামলাগুলোর মধ্যে একটিতে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়েছে।

আইন মন্ত্রী আরো জানান, তারেক রহমান একটি মামলায় নিম্ন আদালতে খালাস পেলেও ওই মামলায় হাইকোর্টের আপীল বিভাগ তাকে ৭ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ কোটি টাকা জরিমানা করেছে। এছাড়া সম্প্রতি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় তারেক রহমানের ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আরও ৮৯৩ ট্রাইব্যুনাল ও আদালত প্রতিষ্ঠার কাজ চলছে:
মনিরুল ইসলামের (যশোর-২) এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, দেশে আরো ৮৯৩ ট্রাইব্যুনাল ও আদালত প্রতিষ্ঠার কাজ চলছে। মন্ত্রীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এরমধ্যে রয়েছে, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে আরো ৫টি সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল, ৭টি সাইবার ট্রাইব্যুনাল, ৮টি মানি লন্ডারিং ট্রাইব্যুনাল, ৩টি শ্রম আদালত, ১১২ টি অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত, ১৫৯ টি যুগ্ম-জেলা জজ পদ সৃষ্টি, ১৯ টি পরিবেশ আদালত, ৬টি পরিবেশ আপীল আদালত, ২১৪ টি সহকারী জজ আদালত সৃষ্টির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে । এছাড়া সারা দেশে ৩৬০ টি মেট্রোপলিটন ম্যাজিট্রেট, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিট্রেট ও সহকারী জজ আদালত পদ সৃষ্টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান আইনমন্ত্রী।

বিচারকের শুন্য পদ পূরণ কার্যক্রম চলছে:
মনিরুল ইসলামের (যশোর-২) এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, দেশের বিভিন্ন আদালতে জমে থাকা মামলাগুলো নিষ্পত্তির জন্য বিচারকের শুন্য পদ পূরণ সহ নতুন পদ সৃষ্টির কার্যক্রম গ্রহন করা হয়েছে।

সরকারের ক্ষমতায় আসার পর থেকে গত বছর পর্যন্ত নিম্ম আদালতে ৬৮৪ জন বিচারক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বিচারকদের দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টার্ন সিডনী ইউনির্ভাসিটিতে ৫৪০ জন বিচারককে প্রশিক্ষণের কার্যক্রম চালু রয়েছে। এরমধ্যে ৬৩ জন প্রশিক্ষণ সমাপ্ত করেছেন। ১৬০ জন বিচারকের প্রশিক্ষণ গ্রহনের আদেশ হয়েছে। এছাড়া ভারতের ভ’পালেও ৭৬ জন বিচারক প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। পাশাপাশি জাইকার অর্থায়নে ১৫ জন জাপানে প্রশিক্ষন নিচ্ছেন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech