গৃহবধূ তানু ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় তিনজনের মৃত্যুদণ্ড

  

পিএনএস ডেস্ক : শরীয়তপুরে গৃহবধূ সামসুন নাহার তানুকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় তিনজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক আব্দুস ছালাম খান এই রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শরিয়তপুর সদর উপজেলার মধ্য চরোসুন্ধি গ্রামের আব্দুল কাদের তালুকদারের ছেলে রেজাউল করিম সুজন তালুকদার (২৪), একই গ্রামের মজিবুর রহমান প্যাদার ছেলে সাইফুল ইসলাম প্যাদা (২২) ও আব্দুল মান্নান মাদবরের ছেলে দুলাল মাদবর (২২)।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন পিপি আ্যাডভোকেট মির্জা হজরত আলী এবং আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহ্ আলম।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, শরিয়তপুর পৌরসভার দক্ষিণ বালুচড়া গ্রামের ইচাহাক মোল্লার স্ত্রী সামসুন নাহার তানু ২০১৪ সালের ১৭ আগস্ট বিকেলে বাড়ি থেকে প্রাইভেট পড়তে বের হয়। এরপর আর সে বাসায় ফেরেনি। এই ঘটনায় পরের দিন শরীয়তপুর মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়। পরে প্রযুক্তির সহায়তায় রেজাউল করিম সুজন তালুকদার নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুজন স্বীকার করে যে, তানুকে সাইফুল ইসলাম ও দুলাল ফুসলিয়ে নিয়ে যায়। পরে সুজন তাকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর তিনজন মিলে ১৮ আগস্ট সদর উপজেলার ধানুকা গ্রামের নাসির উদ্দিন কালু সরদারের বাড়ির পিছনের বাগানে নিয়ে তানুকে হত্যা করে। পরে ইট বেঁধে লাশ পাশের ডোবায় ফেলে দেয়।

এরপর ২২ আগস্ট তানুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় তানুর ভাসুর আবুল কাশেম মোল্লা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বর তিনজনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। বিচারক ১৭ জন জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ মামলায় রায় দেন। এই মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রেজাউল করিম সুজন তালুদকদার জামিন নিয়ে পলাতক আছেন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech