মানহানির মামলায় মইনুলকে কুড়িগ্রাম আদালতে হাজিরার নির্দেশ

  

পিএনএস ডেস্ক: নারী সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে কটূক্তি করায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও বর্তমানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে কুড়িগ্রাম আদালতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের হয়েছে। আদালত মামলা আমলে নিয়ে মইনুলকে হাজিরের নির্দেশ দিয়েছেন।

রবিবার জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা করেন অ্যাডভোকেট মোছা. মাকসুদা বেগম বেবি। মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দ-বিধির ৫০৪/৫০৫ ও ৫০৯ ধারায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলাটি করেন তিনি।

কুড়িগ্রামের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন মামলা দায়েরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় বলা হয়, গত ১৬ অক্টোবর একাত্তর টিভির ‘একাত্তর জার্নাল’ টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে উদ্দেশ্য করে অবমাননাকর বক্তব্য রাখেন। যা সমগ্র নারী সমাজের সম্মান ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন করেছে। তার বক্তব্য মানহানিকর। মামলায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে।

বাদী অ্যাডভোকেট মাকসুদা বেগম বেবির পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট জাকিয়া সুলতানা সুইটিসহ পাঁচ জন আইনজীবী।

আদালতের বিচারক চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মাহমুদুল ইসলাম মামলাটি আমলে নিয়ে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে সমন জারি করে তাকে আগামী ২২ নভেম্বর আমলি আদালতে হাজির হওয়ার আদেশ নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে রবিবার মইনুলের বিরুদ্ধে জামালপুর আমলি আদালতে জেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক ফারজানা ইয়াসমিন লিটা ২০ হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন। পরে বিচারিক হাকিম সোলায়মান কবির তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

একই দিন ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা করেন মাসুদা ভাট্টি নিজে এবং সেই মামলাতেও বিচারক মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

এ দুই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর পর হাইকোর্ট থেকে পাঁচ মাসের আগাম জামিন নেন সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবং নবগঠিত ঐক্যফ্রন্ট নেতা মইনুল হোসেন।

রবিবার (২১ অক্টোবর) বিচারপতি আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech