সিনহা হত্যা: স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির পর কারাগারে এসআই নন্দ দুলাল

  

পিএনএস ডেস্ক: অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলার অন্যতম তিন আসামির মধ্যে নিজেদের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত।

সোমবার কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে জবানবন্দি দেন এসআই নন্দ দুলাল। এর আগে রোববার একই আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন মামলার প্রধান আসামি বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলী।

পৃথক জবানবন্দি শেষে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান কোর্ট ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার দাশ। তিনি বলেন, সিনহা হত্যা মামলায় রোববার আদালতে ১৬৪ ধারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শেষে ইন্সপেক্টর লিয়াকতকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। একইভাবে সোমবার এসআই নন্দ দুলালের জবানবন্দি নেয়ার পর তাকেও আদালত কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) খাইরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, তিন দফা রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে মামলার প্রধান আসামি পরিদর্শক লিয়াকত আলী সিনহা হত্যার ঘটনায় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তিনি সুস্থ মস্তিষ্কে রাজি হয়ে রোববার কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে টানা পৌনে ৫ ঘণ্টা ধরে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। একইভাবে মামলার অন্যতম আরেক আসামি এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিতও ১৬৪ ধারায় নিজের ইচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হন। পরে তাকে সোমবার সকাল ১০টায় একই আদালতের বিচারকের কাছে হাজির করা হয়। সেও সাড়ে ৫ ঘণ্টা ধরে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেন।

গত ৩১ জুলাই কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ রোডে টেকনাফের বাহারছড়া চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে প্রধান, ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে দুই নম্বর আসামি করে ৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ৬ আগস্ট বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপসহ সাত আসামি কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এ পর্যন্ত এই হত্যা মামলায় ১৩ জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন