যে দেশে প্রেমে পড়ে গাছকে গণহারে 'বিয়ে' করছে তরুণীরা!

  

পিএনএস ডেস্ক : পৃথিবীতে প্রতিনিয়ত ঘটছে নানা ধরনের ঘটনা। এর কোনোটি জন্ম দেয় রহস্যের, আবার কোনও ঘটনায় হতবাক হয় মানুষ। কিন্তু গাছের প্রেমে পড়ে গাছকে বিয়ে! তাও আবার গণহারে, এমন ঘটনা বোধহয় এই প্রথম শুনছেন। অবাক করার মতো হলেও এমন অভিনব ঘটনা ঘটেছে মেক্সিকোতে।

প্রথমে এ অভিনব বিয়ে কথা শুনে মনে হতে পারে, পুরুষের প্রতি প্রেম-প্রীতি, শ্রদ্ধা-বিশ্বাস ও ভালোবাসা বুঝি শেষই হয়ে যাচ্ছে মেক্সিকোর মেয়েদের। ‘বজ্জাত’ পুরুষের সঙ্গে জীবনের গাঁটছড়া বাঁধতে আর রাজি নয় তারা।

মেক্সিকোর এই নারীদের গাছকে বিয়ের পেছনে রয়েছে দারুণ যুক্তি- তাদের মতে এই ললনারা এবার দলে দলে প্রাণ-মন-হৃদয় সঁপে দিচ্ছে এক 'সদা-নীরব', উচু-লম্বা এক প্রেমিককে। যে প্রেমিক কথা বলে না, সব সময় চুপ করে থাকে। যে প্রেমিক প্রতারণা করে না, ঠকায় না, পরকীয়ায় মাতে না, দুর্দিনে ছেড়েও যায় না। অথচ অকাতরে ছায়া দিয়ে, মায়া দিয়ে, নির্ভেজাল অক্সিজেন দিয়ে গোটা পৃথিবীকে আমৃত্যু আপন করে যায়।

দলে দলে গাছকেই বাহুডোরে মায়াডোরে বাঁধছে ঘটা করে। সাধারণ আর দশটা বিয়েতে যেমন প্রাদ্রি-পুরোত ডেকে প্রথা ও ধর্মীয় রীতি মেনে আচার অনুষ্ঠান হয়। গাছের সঙ্গে বিয়েতেও তা করা হচ্ছে ষোল আনা।

মূলত, ‘একটা গাছকে ভালোবাসো' বা 'ম্যারি আ ট্রি’ নামের এক অভিনব ক্যাম্পেইন শুরু করেছে প্রকৃতিবান্ধব সংগঠন ‘বেদানি’। পৃথিবী বা বসুন্ধরা নামের আমাদের প্রিয় এই গ্রহকে, এর গাছপালা তরুলতাকে গাছ চোর, তরুঘাতক কাঠব্যবসায়ী মাফিয়াচক্রের করাল কুঠারাঘাত থেকে বাঁচাতেই ‘বেদানি’ শুরু করেছে এক বৃক্ষরক্ষা ক্যাম্পেইন। তারা ‘একটা গাছকে বাসো ভালো’, ‘একটা গাছকে বিয়ে করো ’, ‘গাছ নামের প্রেমিক তোমায় ছেড়ে যাবে না’—এরকম মনকাড়া স্লোগান নিয়ে সুন্দরী ললনাদের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছে বেদানি। গাছকে বিয়ে করার জন্য উদ্বুদ্ধ করছে তরুণীদের।

মজার ব্যাপার, তাতে ব্যাপক সাড়াও মিলছে। শান্ত গাছকেই তারা ঢের যোগ্য প্রেমিক ও বর হিসেবে বেছে নিচ্ছে। গাছের সঙ্গে গণবিয়ের এক হৈহৈ রৈ রৈ কাণ্ড হয়ে গেল সেদেশে বেশ ঘটা করে হাজারো মানুষের উপস্থিতি। মানুষ-কনেদের আর গাছরূপী বরদের গণবিয়ের এই অভিনব আয়োজনে পাদ্রী বা পুরোহিতের দায়িত্ব পালন করেন পেরুভীয় অভিনেতা ও প্রকৃতিবাদী বিচার্ড তোরেস।

কিন্তু বিয়ে মানেই তো দুপক্ষের সম্মতি। কিন্তু গাছ তো আর কথা বলতে পারে না। তাহলে গাছের সম্মতি আছে সেটা জানার উপায় কি? আয়োজকদের মতে, ‘মৌনং সম্মতিং লক্ষণম!’। আরে ভাই এই বিয়ের ছাড়াছাড়ি, বিচ্ছেদ এসবের জন্য তো আর আদালতে দৌড়তে হবে না। তাহলে বাধা কোথায়!

এবার যে তরুণীরা গাছকে ভালেঅবেসে বিয়ে করলো, এটা মেক্সিকো ওয়াক্সাকা প্রদেশের সান হাকিন্তো আমিলকান বনভূমিতে নির্বিচার বৃক্ষনিধন ও অবৈধভাবে গাছ কেটে বনউজাড়েরই এক শিল্পিত প্রতিবাদ। গাছকে ভালোবাসা ও বিয়ে করার মধ্য দিয়ে মেক্সিকোর সুন্দরী ললনারা চায় গাছকে করাত-কুড়ালের দাতের কামড় থেকে বাঁচাতে। গাছকে সবচেয়ে আপন ভেবে আগলে রাখতে। পত্রেপুষ্পে বর্ণেগন্ধে ছায়ায় মায়ায় এক মনোরম পৃথিবীর স্বপ্ন ছড়িয়ে দিতে।

এই তরুণীরা শপথ করেছে, যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ, ততক্ষণ তাদের ‘বরদের গায়ে’ কাউকে কুড়াল বসাতে দেবে না তারা।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech