সেক্সের চাহিদা বেশি আবার কার কম, জানা যাবে রাশি দেখেই - চিত্র-বিচিত্র - Premier News Syndicate Limited (PNS)

সেক্সের চাহিদা বেশি আবার কার কম, জানা যাবে রাশি দেখেই

  

পিএনএস ডেস্ক:কেউ আগুন, কেউ আবার জল। কারোর চাহিদা আকাশছোঁয়া, তো কেউ অল্পেতেই তুষ্ট। সেক্সের ব্যাপারে রাশিতে রাশিতে মিল-অমিল আছে প্রচুর। কারোর সঙ্গে মিলন জমে ক্ষীর হলে, অন্য কারোর সঙ্গে হতে পারে ঠান্ডা ঠান্ডা অভিজ্ঞতা। ফলত, রাশিচক্রের উপরও নির্ভর করে অনেককিছু। চলুন জেনে নিই রাশিতে রাশিতে মিলন সুখে সঙ্গতি কার কেমন –দারুণ উষ্ণ সম্পর্ক তৈরি হতে পারে দু’জনের মধ্যে। কিন্তু পরবর্তীসময় ব্যাপারটা ঠান্ডা হয়ে যেতে পারে একঘেয়েমির কারণে। এর জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করুন। বেডরুমেই সীমাবদ্ধ রাখুন যাবতীয় সুখ।

বৃষ – কন্যাঃসবব্যাপারেই বৃষর মাথা ঠান্ডা। এরা জেদি। যেহেতু একজন সঙ্গীতেই সন্তুষ্ট, তাই দুর্দান্ত প্রেমিকও। মেষ ও সিংহ রাশির প্রতি এরা দুর্বল হয়ে পড়ে। কন্যারাশির দিকে নজর যায় না। কিন্তু সত্যি বলতে কী, সেক্স ও সম্পর্কের ব্যাপারে যদি প্রশ্ন করা হয়, কন্যাই বৃষের আদর্শ শয্যাসঙ্গী। এর কারণ এরা দু’জনেই আর্থ সাইন। দু’জনেই খুব বাস্তববাদী ও সৎ। এদের মধ্যে সেক্স শান্তিপূর্ণ। গতানুগতিক হয়ে যেতে পারে। কিন্তু চমক ধরে রাখতে পারলে এদের মতো সুখী দম্পতি আর কেউ হয় না।

মিথুন – সিংহঃ মিথুনরা রঙিন প্রকৃতির মানুষ। এরা সেক্সে বৈচিত্র খোঁজে। একইরকম জিনিস চলতে থাকলে বোর হয়ে যায়। অন্যদিকে সিংহরা এব্যাপারে দারুণ পটু। সিংহের যৌনতার সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে একমাত্র বৃশ্চিকই। কিন্তু মিথুনের শরীরী খিদে মেটানোর ক্ষেত্রে সিংহের চেয়ে ভালো সঙ্গী আর কেউ নেই। সেক্সের অনেকগুলি ধাপ পেরিয়ে ক্লাইম্যাক্সে পৌঁছোতে চায় এরা।

কর্কট – মীনঃ দু’জনেই ওয়াটার সাইন। ফলত, দু’জনের মধ্যেই অনেক মিল লক্ষ্য করা যায়। এরা নম্র, ভদ্র, মিষ্টি স্বভাবের বুঝদার সঙ্গী হতে পারে। মীন একমাত্র রাশি, যার মধ্যে এই সবক’টি গুণ আছে। এরা খুব রোম্যান্টিকও। সেক্সের ক্লাইম্যাক্সের চেয়ে কর্কট-মীন দু’জনেই রোম্যান্সকে বেশি প্রাধান্য দেয়।

সিংহ – তুলাঃএরা খুউউউব রোম্যান্টিক। কর্কট-মীনের চেয়েও বেশি রোম্যান্টিক। এরা এককথায় একে অপরের পরিপূরক। ঈর্ষা করার মতো এদের কেমিস্ট্রি। এরা প্রেম করে আকাশের চাঁদ দেখে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা হাতে হাত ধরে বসে থাকতে পারে। এদের মধ্যে রোম্যান্স কখনও ফুরোয় না। ফলত, পারফরম্যান্সে ঘাটতি থাকলেও এদের মধ্যেকার প্রেম তা পুষিয়ে দেয় অনায়াসে।

কন্যা – বৃষঃকন্যাকে তুষ্ট করা কঠিন কাজ, অন্তত সেক্সের ব্যাপারে। এরা সেক্সে অতিরিক্ত জটিল। ফলত, কোনও ধৈর্যবান ব্যক্তিই পারে এদের তুষ্ট করতে। আর এই কাজটা সবচেয়ে ভালো করতে পারে বৃষই। বৃষ ধৈর্য ধরে প্রেম করে, সঙ্গীকে বোঝার চেষ্টা করে, সবটাই করে ধৈর্য ধরে। সেক্সের প্রতিটা ধাপ একে একে পেরিয়ে সঙ্গীকে তুষ্ট করতে চায়।

তুলা – ধনুঃতুলা চায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ প্রেম। কিন্তু যে করেই হোক ধনুরা এদের আকৃষ্ট করে নানাভাবে। এর কারণ মূলত, এরা বিপরীত মেরুর বলে হয়তো। এদের সম্পর্ক সুন্দর, স্বাভাবিক, তরতাজা ও প্রাণবন্ত। ধনুর রঙিন চরিত্র হওয়ায় এদের মধ্যে প্রেম হতে পারে আকস্মিকভাবে। সেক্সও হতে পারে প্রথমে। তারপর সম্পর্ক এগিয়ে যেতে পারে।

বৃশ্চিক – মীনঃএরা দু’জনেই ওয়াটার সাইন। ফলত, এদের মধ্যে মিল প্রচুর। খুব সহজেই এরা একে অপরের প্রতি আকৃষ্ট হতে পারে। সাহিত্যে-ভাস্কর্যে যেধরনের যৌনতার বর্ণনা করা আছে, বৃশ্চিক ও মীনের সেরকমই মাখোমাখো সেক্স হতে পারে।

ধনু – মেষঃ ধনু রঙিন। মেষ ছটফটে। তাই এদের সেক্স হতে পারে রোমাঞ্চকর ও আনন্দে ভরপুর। মেষের বন্যতা ধনুকে উত্তেজিত করতে পারে সহজেই। এরা দু’জনেই প্রগতিশীল ও সাহসী প্রমাণিত হতে পারে। এরা নানাভাবে নিজেদের যৌনতা উপভোগ করতে পারে।

মকর – বৃশ্চিকঃ রাশিচক্রের মধ্যে যৌনভাবে সক্রিয় কোনও রাশি যদি থাকে, তা হল বৃশ্চিক ও সিংহ। অন্যদিকে যৌনতায় মকরের নমনীয়তা পছন্দ নয়। ফলত, মকর ও বৃশ্চিকের বন্যতা সেক্সে আলাদা মাত্রা যোগ করতে পারে।

কুম্ভ – মিথুনঃকুম্ভ বুদ্ধিমান ও মানসিকভাবে খুব শক্ত। এরা সেক্সেও মানসিক তৃপ্তি খোঁজে। এরা অপ্রত্যাশিতভাবে সঙ্গীকে কাছে টানতে পারে। মিথুনেরও এই প্রকৃতির মানুষই পছন্দ। তাই এদের মধ্যে সম্পর্ক দারুণ হতে পারে।

মীন – বৃশ্চিকঃমীন খুব রোম্যান্টিক। সেই রোম্যান্টিকতা প্রতিফলিত হয় সেক্সের ক্ষেত্রেও। অন্যদিকে বৃশ্চিক আবেগতাড়িত ও বন্য। ফলত, সম্পর্কে থাকলে এই দুটি ওয়াটার সাইনের সেক্সলাইফ সুন্দর হতে পারে।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech