গ্যাস সিলিন্ডার দুর্ঘটনা এড়াতে যা যা করবেন!

  


পিএনএস ডেস্ক : এমনটা না হওয়াই ভালো। কিন্তু যা ঘটার তা তো ঘটতেই পারে। ফলে আগাম সতর্কতা এবং সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়াটাই জরুরি। রান্না করার সময় আচমকা মনে হল- গ্যাস লিক করছে। সিলিন্ডার সরবরাহকারীকে ফোন করার আগে-পরে মেনে চলতে পারেন এই ৭টি পদ্ধতি।

আতঙ্কহীনতা
ঘটনার আকস্মিকতায় খেই হারিয়ে ফেলার মূল কারণ এই আতঙ্ক। গ্যাস লিক করছে তা নাকে অনুভব করার পরই নিজেকে শক্ত করতে হবে। প্রথমেই ভয়ের কাছে নিতস্বীকার করলে কার্যকরী কোনো পদক্ষেপ নেওয়া যায় না। বাড়ির অন্যান্য বাসিন্দাদের গ্যাস লিকের কথা জানিয়ে দিতে হবে।

জ্বলন্ত শিখা ও বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম
জ্বলছে এমন যে কোনো কিছু তৎক্ষণাৎ নিভিয়ে দিতে হবে। সে যতই ছোট হোক না কেন। দেশলাই তো জ্বালানোই যাবে না। এ ছাড়া যে কোনো বৈদ্যুতিক সরঞ্জামও বন্ধ করে দিতে হবে।

সিলিন্ডারে যা করতে হবে
সিলিন্ডারের সুইচ অফ করতে হবে। এর পর ধীরে ধীরে রেগুলেটরটি খুলে ফেলতে হবে। সিলিন্ডারের মুখে সেফটি ক্যাপ লাগিয়ে দিতে হবে। তবে খুব সাবধানে।

দরজা-জানালা
ঘরের দরজা-জানালা সব খুলে দিতে হবে, যাতে বেরিয়ে যাওয়া গ্যাস বাইরে চলে যেতে পারে। তবে হ্যা, এর জন্য সিলিং অথবা এক্সজর্ট ফ্যান মোটেই চালানো যাবে না। যদি মনে হয় নাক-মুখে গ্যাস ঢুকেছে, তা হলে ঘরের বাইরে উন্মুক্ত জায়গায় গিয়ে দাঁড়াতে হবে।

পোশাক-পরিচ্ছদ
যদি মনে হয় পরনের পোশাকে গ্যাস ধরেছে, তা হলে সেগুলি বদলে নিতে হবে। ওই পোশাক ১০-১৫ মিনিট ভালো করে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

চোখে গ্যাস লাগলে
চোখ যদি গ্যাস আক্রান্ত হয় জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে ১০-১৫ মিনিট ধরে। চোখে কন্ট্যাক্ট লেন্স থাকলে, তা খুলে ফেলতে হবে। প্রয়োজনে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

সিলিন্ডারে আগুন
সিলিন্ডারে আগুনের শিখা ধরতে শুরু করেছে? মোটা কোনো কাপড় জলে ভিজিয়ে ভালো করে নিংড়ে নিয়ে সিলিন্ডারটিকে জড়িয়ে ফেলতে হবে। বাইরের বাতাস স্পর্শ না করতে পারলে আগুন আপনা হতেই নিভে যাবে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech