গভীর রাতে পাগল প্রবাসী বধূ…! (ভিডিওসহ)

  


পিএনএস ডেস্ক : মাজেদা বেগমের বাড়ী রসুলপুর গ্রামে। সাধারণ সাদামাটা গৃহস্ত ঘরের মেয়ে সে। লেখাপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্তই শেষ। দেখতে বেশ সুন্দর। গায়ের রং ফর্সা, শুদ্ধ ব্যকরণের শরীর, উচ্চতা পরিমিত। বিয়ে হয়েছে কম বয়সে। স্বামী প্রবাসী। এখন বয়স খানিকটা বেড়েছে। দুই সন্তানের মা হলেও শরীরের ভাঁজ নষ্ট হয়নি। জ্বালা ধরানো যৌবন এখনো অনেক পুরুষের ঘুম হারাম করার জন্য যথেষ্ট।
স্বামী নুরুল ইসলাম বিদেশে থাকার কারণে মাজেদাও উন্মুখ থাকে পুরুষের সঙ্গ পেতে। পাড়া প্রতিবেশি অনেক ছেলে বুড়ো অনেকের সাথেই তার ভাল সম্পর্ক। তবে চটি টাইপের কথাবার্তা আর মাঝে মধ্যে মানুষের চোখ ছাপিয়ে হাত ধরাধরি, দু’একবার দু’একজনের অতি আগ্রহের কারণে তেমন কোন বড় যৌন সম্পর্ক কারও সাথে হয়ে ওঠেনি।
অনেকেই বলে স্বামী বিদেশে থাকলে নাকি, মহিলারা কারও না কারও সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। কিন্তু মাজেদার ক্ষেত্রে তা হয়ে ওঠেনি। যদিও মাজেদা অনেকবার সে রকম পরিস্থিতির কাছে গিয়েও ফিরে এসেছে। একবার সালাম ভাই ওর ঘরে ঢুকে জড়িয়ে ধরে ঠোটেঁ চুমু। মাজেদা বাধা দিয়েও তাকে সরাতে পারছিল না। আসলে ও যে পুরোপুরি বাধাও দিচ্ছিল তাও নয়। ওর কেমন যেন ভাল লাগছিল।

কিন্তু পাশাপাশি এও মনে হচ্ছিল এটা কি ঠিক হচ্ছে? ঠিক বেঠিকের চেয়ে কেমন যেন ভয়ও হচ্ছিল- যদি কেউ দেখে ফেলে। একসময় ওদের যাত্রা ভঙ্গ হল ওর বাচ্চাটার ঘুম ভেঙ্গে যাওয়ার পর। সালাম ভাইও দৌড়ে পালালো। মরিয়ম ওর বাচ্চাটাকে আদর করা শুরু করলো। ও বুঝতে পারলো এইটুকুতেই ওর অবস্থা বেগতিক। সূত্র : ওয়েবসাইট



পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech