ইজতেমার মোনাজাত পরিচালনা করবেন কে?

  

পিএনএস ডেস্ক: রাত পোহালেই আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার ৫৩ তম আসর। ইতোমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের লোকজন আসছেন। লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে ইজতেমার প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন ভাগে দায়িত্ব পালন করবেন। ইজতেমা উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

কিন্তু এতো আয়োজনে ইজতেমার আখেরি মোনাজাত পারচালনা করবেন কে? তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়। গতবছর ভারতের তাবলিগ মুরব্বি মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভি আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেছিলেন। বিভ্রান্তিকর ও আপত্তিকর বয়ানের কারণে এবার তিনি ইজতেমায় যোগ দিতে পারবেন না।

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বিকাল ৩টায় তাবলিগ জামাতের বিবদমান দুই পক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এসময় মন্ত্রী বলেন, মাওলানা সাদ সুবিধামতো সময়ে দিল্লি ফিরে যাবেন। যতদিন বাংলাদেশে থাকবেন ততদিন কাকরাইল মসজিদেই থাকবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এবার ইজতেমায় আখেরি মোনাজাত কে পরিচালনা করবেন, তা তাবলিগ জামাতের নেতারাই ঠিক করবেন। এটা একান্তই তাদের নিজস্ব বিষয়।

এরআগে, বুধবার সকাল থেকেই তাবলিগ জামাতের একটি অংশের অনুসারীরা রাজধানীতে মাওলানা সাদ বিরোধী বিক্ষোভ করছেন। সাদকে বাংলাদেশে ঢুকতে না দেয়ার ঘোষণা দিয়ে বুধবার তারা হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর সড়কে অবস্থান নেন। পরে কঠোর নিরাপত্তায় সেনানিবাসের ভেতর দিয়ে বিকেলে মাওলানা সাদকে কাকরাইল মসজিদের তাবলিগ জামাতের মারকাজে নেয়া হয়।

‘তবলিগ করা ছাড়া কেউ বেহেশতে যেতে পারবে না’ বলে বক্তব্য দেয়ায় তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদরাসা। সেখান থেকে মাওলানা সাদকে এ বক্তব্য প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু তিনি উল্টো যুক্তি দেন। এ নিয়ে মাওলানা সাদের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech