‘অপরাধীদের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি হবে’

  

পিএনএস ডেস্ক : টাঙ্গাইলের রূপা খাতুন ধর্ষণ ও হত্যা মামলার রায় যৌক্তিক সময়ে ও যথাযথ হয়েছে বলে মনে করেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির তৈরি হয়েছে বলে মনে করা হয়।

এ রায় সেই সংস্কৃতির বিপরীতে একটি উদাহরণ। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি এ রায়ের ফলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতির সৃষ্টি হবে।’

আজ সোমবার মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেন, ‘রূপা একটি পাশবিক ঘটনার শিকার হয়েছিলেন। রায়টি দ্রুততম সময়ে হয়েছে এবং যথাযথ হয়েছে বলে আমার মনে হয়। অপরাধীরা এখানে উপযুক্ত শাস্তি পেয়েছে।

এ ঘটনার পর জনমনে ঘৃণা তৈরি হয়েছিল। মানুষ যেমন রায় কামনা করেছিল, তেমনটাই হয়েছে বলে আমার মনে হয়। এখানে পুলিশ অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে দ্রুত তাদের তদন্ত করেছে। আবার তেমনি আদালত যৌক্তিক সময়ের মধ্যে রায় দিয়েছেন। আমার মনে হয়, এর ফলে আইনের শাসনের প্রতি মানুষের আস্থা বেড়েছে। আমার প্রত্যাশা, দেশের চাঞ্চল্যকর প্রতিটি ঘটনার দ্রুত তদন্ত ও বিচার আমরা চাই। এখন পর্যন্ত সাগর-রুনির হত্যা মামলার তদন্ত শেষ হলো না। আমরা আশা করব, এসব নৃশংস ঘটনার দ্রুত বিচার হবে।’

কাজী রিয়াজুল হক বলেন, ‘অপরাধ করেও পার পেয়ে যাওয়ার ফলে অপরাধ আরও বাড়ে—আমাদের এই বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। এ রায়ের ফলে সেই বিচারহীনতার সংস্কৃতির বিপরীতে একটি উদাহরণ তৈরি হলো। এ রায়ে ভুক্তভোগীদের পরিবার সন্তুষ্ট হয়েছে। এটা ভালো দিক। আমরা চাই, এমন ভুক্তভোগী সব পরিবারই তাদের কাঙ্ক্ষিত রায় পাক। এর ফলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি হবে। এর ফলে অপরাধপ্রবণতা কমে আসবে।’

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech