ঈদের আগেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৩২ কিলোমিটার যানজট

  

পিএনএস ডেস্ক : কুমিল্লায় ৩২ কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়েছে। ঈদযাত্রায় যানজট থেকে বাচতে আগেই রওয়ানা হওয়া যাত্রীদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে বসে থেকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের মধ্যে মহাসড়কের কুমিল্লা দাউদকান্দি মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা থেকে চান্দিনার মাধাইয়া পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার এবং মুন্সিগঞ্জ জেলার অংশে ১০ কিলোমিটার যানজট লেগে আছে।

গাড়ির চালক ও যাত্রীরা বলছেন, কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে ঢাকা যাতায়াতের ২ ঘণ্টার রাস্তায় প্রায় ৬-৭ ঘণ্টা সময় লেগে যাচ্ছে।

যাত্রী ও চালকদের অভিযোগ-মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা সেতু এবং দাউদকান্দির টোলপ্লাজা এলাকায় ওজন নিয়ন্ত্রণ স্কেলে টাকা আদায়ে ধীরগতি এবং অতিরিক্ত গাড়ির চাপ ও বেপরোয়া গতিতে এলোপাতারি গাড়ি চলাচলের কারণে তারা ফোর লেনের তেমন সুফল পাচ্ছেন না।

যানজটে আটকা পড়ে যাত্রী ছাড়াও পণ্যবাহী যানবাহন, অ্যাম্বুলেন্সকে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। এছাড়া ঈদ উপলক্ষে সামনে কয়েকদিন সড়কে মালবাহী গাড়ি চলবে না বিধায় সেই চাপ সড়কে পড়েছে। ট্রাফিক সপ্তাহের প্রভাবও পড়েছে।

কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দাউদকান্দি সার্কেল) মহিদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকামুখী দাউদকান্দি টোল প্লাজা থেকে কুমিল্লা অংশের ১০ থেকে ১২ কিলোমিটার যানজট রয়েছে।

দাউদকান্দি টোল প্লাজায় ৮টি বুথ রয়েছে কিন্তু ব্রিজে গাড়ি উঠতে পারছে একটি। এখানে একটি জটলার সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি কোনো গাড়ি রাস্তায় নষ্ট হলে তা সরাতে বেশ সময় লাগে।

দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি (তদন্ত) নুরুল ইসলাম জানান, ট্রাফিক সপ্তাহে মামলার ভয়ে ফিটনেসবিহীন অনেক গাড়ি রাস্তায় নামানো হয়নি। গত ২ দিন ধরে রাস্তায় নামানো হয়েছে এসব গাড়ি।

এছড়া ঈদের ৩ দিন আগে থেকে পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখা হবে বলে এসব গাড়ির চাপও বেড়ে গেছে। সেতু এলাকায় সৃষ্টি হওয়া যানজট ফোর লেনে ছড়িয়ে পড়েছে বলেও জানান তিনি।

পুলিশ যানজট নিরসনে কাজ করছে বলে জানান হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা রিজিওনের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech