বাংলাদেশে মানবসম্পদ তৈরিতে সহায়তা করবে চীন

  

পিএনএস ডেস্ক: বাংলাদেশের ব্যবসা, শিক্ষা, বিনিয়োগ উৎপাদনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নে সহায়তা করবে চীন। কর্মক্ষেত্রে দক্ষতা বাড়াতে ফেলোশিপের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত ৬৯৭ জনকে চীনে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এ কর্মসূচি আরো বৃদ্ধির অঙ্গীকার করেছেন চীনের দূতাবাসের ইকোনমিক অ্যান্ড কমার্শিয়াল কনস্যুলার লি গুয়াংজুন। শনিবার রাজধানীর হোটেলে বাংলাদেশ ও চীনের যৌথ আয়োজনে ফেলোশিপ সংবর্ধনায় চীনের উন্নয়নের সঙ্গে বাংলাদেশ এগিয়ে নিতে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি।
লি গুয়াংজুন বলেন, ২০১৫ সালকে নিজেদের সংস্কার এবং নতুনভাবে উন্নত করার ৪০ বছর পালন করছে চীন। এই মুহূর্তে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহতম অর্থনীতি হিসেবে আর্বিভুত হয়েছে চীন। আমাদের উন্নতির পাশাপাশি বাংলাদেশের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে বিশ্বের অনান্য উন্নয়নশীল দেশগুলোও এগিয়ে নিতে কাজ করা হবে। এ কারণে বাংলাদেশের শিক্ষার্থী ও কর্মজীবিদের মানবসম্পদ গড়তে নানারকম প্রশিক্ষণ সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে বিদ্যুৎ সহযোগিতা, হাইটেক পার্কের উন্নয়ন, দুই দেশের মধ্যে ইকোনমি বিষয়ক ফোরাম কর্মশালা করা হচ্ছে। চীন থেকে ফেলোশিপ গ্রহণকারীরা নিজেদের শিক্ষা ও অভিজ্ঞতা নিয়ে কর্মক্ষেত্র কাজে লাগিয়ে সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখবে।
অনুষ্ঠানে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. জহিরুল হক বলেন, বাংলাদেশ ও চীনের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক দীর্ঘদিন ধরে অব্যাহত রয়েছে। চীনের সহায়তায় অর্থ-বাণিজ্য, শিক্ষাসহ বিভিন্ন খাতে উন্নত প্রশিক্ষণ দিয়ে বাংলাদেশের উন্নয়নে সহায়তা করে যাচ্ছে। তাদের সহায়তায় কূটনৈতিক, মেডিকেল-স্বাস্থ্য, সমুদ্র বিজ্ঞান, কৃষি, বিনিয়োগ ও বাণিজ্য, অবকাঠামো, উৎপাদনের সামর্থ্য বৃদ্ধি, আইসিটি, পাবলিক ম্যানেজমেন্ট, পাবলিক সিকিউরিটি ইত্যাদি বিষয়ে ফেলোশিপ, শর্ট কোর্সের সুযোগ করে দেয়া হচ্ছে।
অনুষ্ঠানে ফেলোশিপ সম্পন্ন করা ২০ জনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech