গরমে কতটুকু কমতে পারে করোনার তীব্রতা?

  

পিএনএস ডেস্ক : বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে অপেক্ষাকৃত শীতল বা কম তাপমাত্রার দেশের মানুষ আক্রান্ত হয়েছে বেশি। সেদিক থেকে উষ্ণ বা গরম দেশগুলোতে আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলক কম। তবে এই পরিস্থিতি সাময়িক হতে পারে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞদের মতে তাপমাত্রা করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলার সম্ভাবনা খুব কম।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাও এক প্রতিবেদনে একই কথা বলেছে। তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে নিজ নিক ঘরে অবস্থান করায় এখন সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ, এমনটা মত বিশেষজ্ঞদের।

বিশেষজ্ঞরা আরও বলেছেন, করোনা ভাইরাস কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে যেকোনো মুহূর্তে পাল্টে যেতে পারে গরম দেশগুলোর পরিস্থিতি। যার পরিস্থিতি হতে পারে ভয়াবহ। সেক্ষেত্রে এমনকি ক্ষতির পরিসংখ্যানে তা শীতল দেশগুলোকে ছাড়িয়ে যেতে পারে।

শনিবার (২৮ মার্চ) এই প্রতিবেদন তৈরির সময় পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে নভেল করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৯৭ হাজার ৪৫৮ জন। যাদের মধ্যে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৩৮৭ জনই বর্তমানে সুস্থ। মারা গেছেন ২৭ হাজার ৩৭০ জন।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী

শনিবার (২৮ মার্চ) সকাল পর্যন্ত করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বে সবার ওপরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৪ হাজার ২০৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৭০১ জনের। সুস্থ ২ হাজার ৫২৫ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২ হাজার ৪৯৪ জন। এদিন যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এরপরের অবস্থানে রয়েছে চীন। দেশটিতে মোট ৮১ হাজার ৩৯৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ২৯৫ জনের। তবে ৭৪ হাজার ৯৭১ জন বর্তমানে সুস্থ আছেন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৮৮৬ জন। চীনে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

চীনের প্রতিবেশী রাষ্ট্র তাইওয়ানে আক্রান্তের সংখ্যা ২৬৭ জন। মারা গেছেন ২ জন। সুস্থ ৩০ জন। তাইওয়ানে শনিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সৌদি আরবে ১ হাজার ১০৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৩ জন। সুস্থ ৩৫ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৬ জন। মধ্যপ্রাচ্যের এ দেশটিতে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৪০৫ জন আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। সুস্থ ৫২ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২ জন। দেশটিতে শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে ২২৫ জন আক্রান্ত হলেও এখনও পর্যন্ত কারও মৃত্যুর খবর মেলেনি। সুস্থ হয়েছেন ৫৭ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ১১ জন। কুয়েতে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

পাশের দেশ ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। সুস্থ ৭৩ জন। দেশটিতে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অন্যদিকে বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর। যাদের মধ্যে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ ১১ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ১ জন। বাংলাদেশে শনিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ইরানে ৩২ হাজার ৩৩২ জনের মধ্যে ২ হাজার ৩৭৮ জন মারা গেছেন। সুস্থ ১১ হাজার ১৩৩ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২ হাজার ৮৯৩ জন। ইরানে শনিবারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

স্পেনে আক্রান্ত হন ৬৫ হাজার ৭১৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ১৩৮ জনের। সুস্থ ৯ হাজার ৩৫৭ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৪ হাজার ১৬৫ জন। স্পেনের এদিনকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জার্মানিতে ৫০ হাজার ৮৭১ জন আক্রান্ত হন। মারা যান ৩৫১ জন ও সুস্থ ৬ হাজার ৬৫৮ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ১ হাজার ৫৮১ জন। দেশটিতে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ফ্রান্সে ৩২ হাজার ৯৬৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১ হাজার ৯৯৫ জন। সুস্থ ৫ হাজার ৭৪০ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৩ হাজার ৭৮৭ জন। ফ্রান্সের এদিনকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

যুক্তরাজ্যে ১৪ হাজার ৫৪৩ জন আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৭৫৯ জনের। সুস্থ ১৩৫ জন। ১৬৩ জন গুরুতর অবস্থায় আছে। দেশটিতে শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ইতালিতে ৮৬ হাজার ৪৮৯ জন আক্রান্তের মধ্যে মারা গেছেন ৯ হাজার ১৩৪ জন। সুস্থ ১০ হাজার ৯৫০ জন। ৩ হাজার ৭৩২ জন গুরুতর অবস্থায় আছে। শনিবার ইতালিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সুইজারল্যান্ডে ১২ হাজার ৯২৮ জনের মধ্যে ২৩১ জন মারা গেছেন। সুস্থ ১ হাজার ৫৩০ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২০৩ জন। দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দক্ষিণ কোরিয়ায় ৯ হাজার ৪৭৮ জনের মধ্যে ১৪৪ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৪ হাজার ৮১১ জন। ৫৯ জন গুরুতর অবস্থায় আছে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অস্ট্রেলিয়ায় ৩ হাজার ৫৭৩ জনের মধ্যে ১৪ জন মারা গেছেন। সুস্থ ১৭০ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২৩ জন। শনিবারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

কানাডায় ৪ হাজার ৭৫৭ জনের মধ্যে ৫৫ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৩৫৪ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ১২০ জন। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ইসরাইলে ৩ হাজার ৩৫ জনের মধ্যে ১২ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৭৯ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৪৯। দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ব্রাজিলে ৩ হাজার ৪৭৭ জনের মধ্যে ৯৩ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৬ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ২৯৬ জন। দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জাপানে ১ হাজার ৪৯৯ জনের মধ্যে ৪৯ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৩৭২ জন। ৫৬ জন গুরুতর অবস্থায় আছে। জাপানে শনিবারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

পাকিস্তানে ১ হাজার ৩৭৩ জনের মধ্যে ১১ জন মারা গেছেন। সুস্থ ২৩ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৭ জন। দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মালয়েশিয়ায় ২ হাজার ১৬১ জনের মধ্যে ২৬ জন মারা গেছেন। সুস্থ ২৫৯ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৫৪ জন। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ইন্দোনেশিয়ায় ১ হাজার ৪৬ জনের মধ্যে ৮৭ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৪৬ জন। দেশটিতে কেউ গুরুতর অবস্থায় নেই। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সিঙ্গাপুরে ৭৩২ জনের মধ্যে ২ জন মারা গেছেন। সুস্থ ১৮৩ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ১৭ জন। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

কাতারে ৫৬২ জনের মধ্যে এখনো কেউ মারা যায় নাই । সুস্থ হয়েছে ৪৩ জন। এছাড়া গুরুতর অবস্থায় আছে ৬ জন। দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

মেক্সিকোতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ জন। এখনো কেউ মারা যায় নাই। সুস্থ হয়েছে ১০ জন।সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাশিয়ায় ১ হাজার ৩৬ জনের মধ্যে ৪ জন মারা গেছেন। সুস্থ ৪৫ জন। গুরুতর অবস্থায় আছে ৮ জন। শনিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

পিএনএস/ এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন