আড়াইশ রোহিঙ্গা নিয়ে মালয়েশিয়ায় নৌকা আটক

  

পিএনএস ডেস্ক : মালয়েশিয়ার একটি দ্বীপ উপকূল থেকে ২৫০ জনের বেশি রোহিঙ্গাকে নিয়ে একটি ফিশিং বোট উদ্ধার করা হয়েছে। দেশটির লঙ্কাউই উপকূলের রিৎজ কার্লটন হোটেলের এক নর্টিকেল মাইল দূর থেকে রোববার সকালে তাদেরকে উদ্ধার করে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতদের রোহিঙ্গা মুসলিম বলে দাবি করছে কর্তৃপক্ষ। রোববার মালয়েশিয়ার সময় ভোর ৫টায় তাদের আচক করা হয়।

মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ বলছে এই মুহূর্তে সবাই যখন করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বিগ্ন ঠিক তখনই মানবপাচারকারীরা সুযোগ নিচ্ছে নানা অবৈধ উপায়ে উদ্দেশ্য হাসিল করার। মালয়েশিয়ায় এখন কোভিড-১৯ সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন চলছে। আটক রোহিঙ্গাদের উক্ত হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

ওই নৌকায় ২৫০ জনের মতো ছিল বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা স্টার ডটকম। যার মধ্যে ১৫২ জন পুরুষ, অন্যরা নারী ও শিশু। স্থানীয় গণমাধ্যমে দেখা গেছে, এলাকাবাসী বলছে সেখানে ভোর পাঁচটার দিকে কাঠের একটি ফিশিং বোট দেখা যায়। তখন একজন গ্রামবাসী পুলিশকে ঘটনাটি জানায় ও পুলিশ তাড়াতাড়ি ব্যবস্থা নেয়।

কোস্টগার্ড বলছে, এই পুরো গ্রুপটিকে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে কারণ তারা অবৈধভাবে মালযেশিয়া প্রবেশ করেছে। তবে সেখান থেকে তিনজন পাচারকারী পালিয়েছেন বলছে মালয়েশিয়ায় ঢুকতে চেষ্টা করা দলটি। তাদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতে বঙ্গোপসাগর দিয়ে ১৩০ জন যাত্রী নিয়ে সাগর পার হওয়ার চেষ্টা করার সময় বাংলাদেশের সেন্টমার্টিন দ্বীপে ডুবে যায় একটি নৌকা। যেখানে মারা যান ১৫ জন রোহিঙ্গা।
কক্সবাজারের উখিয়ার ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, মার্চের ৩-৪ তারিখ বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সমুদ্র থেকে দুটো বড় আকারের ফিশিং বোট ছেড়ে যায়। দুটো বোটে ৫-৬ শ'য়ের মত রোহিঙ্গা যাচ্ছিলো মালয়েশিয়া। জাহাজ দুটো গত ২৭ মার্চ থাইল্যান্ডের মেরিনার্স বর্ডারে ঢুকার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরদিন জাহাজ দুটো মালয়েশিয়া উপকূলে ভিড়তে চেষ্টা করে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সেখানে কঠোরতা থাকায় কোস্ট গার্ড ও নৌবাহিনী রোহিঙ্গা বোঝাই জাহাজ দুটো মালয়েশিয়া উপকূল ভিড়তে দেয়নি। অবশেষে দালালরা রহস্যজনক উপায়ে আড়াই শতাধিক রোহিঙ্গা বহনকারী একটি বোটকে রোববার মালয়েশিয়ার লঙ্কাউই দ্বীপ উপকূলে ভিড়াতে সক্ষম হয়েছে। অন্য একটি বোটের পরিণতি সম্পর্কে জানা যায়নি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন