সীমান্তে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে ব্যাপক গোলাগুলি, বিজিবির হাই অ্যালার্ট

  

পিএনএস ডেস্ক : পার্বত্য জেলা বান্দরবানের তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে গোলাগুলির ঘটনায় মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি)’র কাছে প্রতিবাদলিপি পাঠিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

শুক্রবার (৫ জুন) সন্ধ্যায় বিজিপিকে এ প্রতিবাদলিপি পাঠায় বিজিবি।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারস্থ বিজিবির ৩৪ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন‌্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত তুমব্রু সীমান্তে বর্ডার পিলার ৩৫ এর বিপরীতে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে তুমব্রু শূন্যরেখায় আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গারা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে।

লেফটেন‌্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ জানান, গোলাগুলির এ ঘটনার পর বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতরে বিজিবির টহল জোরদার করা হয়েছে। মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিজিপির কাছে গোলাগুলির বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে চিঠিতে।

তিনি জানান, বিজিপি জানিয়েছে, সীমান্তের কাছাকাছি মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযানকালে গুলি বিনিময় হয়েছে। সীমান্ত সংলগ্ন কোনও অভিযান হলে সেটা বিজিবিকে আগে থেকেই জানানোর কথা। কিন্তু বিজিপি সেটি না জানানোয় শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রতিবাদলিপি পাঠিয়েছে বিজিবি।

বিজিবির এই কর্মকর্তা বলেন, ‘যেতেহু সীমান্তের কাছাকাছি গোলাগুলি হয়েছে তাই শূন্যরেখায় অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। ইতোমধ্যে রোহিঙ্গাদের আশ্বস্ত করা হয়েছে। সীমান্তে বিজিবি টহল জোরদার করা হয়েছে। যেকোনও পরিস্থিতি সামাল দিতে বিজিবি প্রস্তুত রয়েছে।’

জ্বালা-পোড়াও, ধর্ষণ, হত্যা ও জাতিগত নিপীড়নের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে নতুন করে সাড়ে ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। যার মধ্যে তুমব্রু সীমান্তে শূন্যরেখার কোনারপাড়ায় বর্তমানে ১ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা পরিবারের বসবাস।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন