বিএনপির ইশতেহারের মূল বিষয়বস্তু ‘দুর্নীতিমুক্ত উন্নয়ন’

  

পিএনএস ডেস্ক : বিএনপির এবারের নির্বাচনী ইশতারের মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে দুর্নীতিমুক্ত উন্নয়ন। এছাড়া শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তার প্রতিশ্রুতিও থাকছে তাতে।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এসব তথ্য জানিয়েছেন।

গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, জনকল্যাণমূলক রাষ্ট্রের জন্য ইশতেহার প্রস্তত করছে বিএনপি। খুব শিগগিরই সেটি প্রকাশ করা হবে।

এদিকে, বিএনপির দলীয় সূত্রে জানা যায়, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ঘোষিত ভিশন ২০৩০-এর আলোকে তৈরি হচ্ছে বিএনপির ইশতেহার। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রণীত ইশতেহারে সরকার, সংসদ, রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা, কৃষি, পররাষ্ট্রনীতিসহ সরকারের প্রতিটি সেক্টরকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

সুশাসন, স্বচ্ছতা ও স্ব অবস্থান- এ তিন অঙ্গীকারের মধ্যে দিয়ে নবধারার রাজনীতি ও সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি থাকছে ইশতেহারে। থাকছে নতুন চমক ও অঙ্গীকার। ‘জনগণ এ রাষ্ট্রের মালিক’- এ ধারণা সুপ্রতিষ্ঠিত করার নির্দেশনা সংবলিত ইশতেহারে সব মত ও পথ নিয়ে বাংলাদেশকে একটি রেইনবো ন্যাশন বা রংধনু জাতিতে পরিণত করার বিস্তারিত ঘোষণা থাকবে। গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ওপরও।

সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে ‘দেশের মালিক জনগণ, ধানের শীষে ভোট দিন’; ‘দেশ বাঁচাতে মানুষ বাঁচাতে, আনবে পরিবর্তন’সহ তিনটি স্লোগানের খসড়া তৈরি হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম স্লোগানটির পক্ষে অনেকে মত দিয়েছেন। তবে এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এছাড়া শান্তি ও কল্যাণকর সংসদীয় গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ রাষ্ট্র তৈরির জন্য জাতির উদ্দেশে ৫ প্রতিশ্রুতি নির্বাচনী ইশতেহারের প্রাথমিক খসড়ায় রয়েছে। বাস্তবতা বিবেচনায় কিছুটা পরিবর্তন এলেও এসব প্রতিশ্রুতি প্রাধান্য পাবে ইশতেহারে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ১০ মে আধুনিক ও উন্নত বাংলাদেশ গড়তে ৩৭টি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে ‘ভিশন-২০৩০’ ঘোষণা করেছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির এবারের নির্বাচনী ইশতেহার তৈরি হচ্ছে সেই আলোকেই। তবে বিএনপির এই ইশতেহারে নবগঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফা দাবি ও ১১ লক্ষ্যের প্রতিফলনও থাকছে বলে জানা গেছে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech