রওশনের আসনে জি এম কাদের

  

পিএনএস ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর অবশেষে প্রথমবারের মতো সংসদ অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। অসুস্থতার কারণে এতদিন অধিবেশনে তিনি যোগ দিতে পারেননি।

এমন এক অনিশ্চয়তার মধ্যে রোববার ৪টা ৫৫ মিনিটে অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করে বিরোধী দলীয় নেতার চেয়ারে বসেন এরশাদ। এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করছিলেন। ১৫ মিনিটের মত সংসদের অধিবেশনে অবস্থান করে তিনি সংসদ ভবন ত্যাগ করে সরাসরি বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবনের উদ্দেশে রওনা দেন। ১৯৯০ সালে রাষ্ট্রক্ষমতা ছাড়ার পর এবারই প্রথমবারের মতো সংসদীয় গণতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থায় এরশাদ সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হন।

বিরোধী দলের নেতা হিসেবে এরশাদ প্রথমবারের মতো সংসদ অধিবেশনে যোগ দিলেও জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান এরশাদপত্নী রওশন এরশাদ রোববার সংসদে যাননি। এরশাদের বাম পাশের আসনটিতেই রওশন বসেন। এরশাদ যতক্ষণ অধিবেশন কক্ষে ছিলেন ততক্ষণই রওশনের চেয়ারে বসে এরশাদের সাথে কথা বলছিলেন ছোটভাই বিরোধী দলের উপনেতা জিএম কাদের। এসময় এরশাদকে বেশ হাসিখুশি দেখাচ্ছিল। অধিবেশন কক্ষের চারদিকে তাকিয়ে সংসদে কে কোথায় বসেছেন তা মাথা ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে দেখতে দেখা যায় এরশাদকে। এর ফাঁকে সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ এসে একবার এরশাদের পাশে বসে তার কুশল জানতে চান।

১৫ মিনিট অবস্থানের পর আবারো হুইল চেয়ারে করে লিফটে গিয়ে গাড়িতে ওঠেন এরশাদ। অধিবেশন কক্ষ থেকে শুরু করে গাড়িতে ওঠা পর্যন্ত পেছন থেকে হুইল চেয়ার ঠেলে নিয়ে যান মসিউর রহমান রাঙ্গা। এসময় জিএম কাদের, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, নাসরিন জাহান রত্না, মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ প্রমুখ এরশাদের সঙ্গে ছিলেন।

এ সময় কুশল জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, এখন অনেকটাই ভালো আছি। তোমাদের দোয়া ও আল্লাহর রহমতে সংসদে আসতে পেরেছি। আমার জন্য দোয়া করো। এরপর লিফটে উঠতেই এরশাদের সঙ্গে দেখা হয় জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনুর। ইনু সালাম দিয়ে বলেন, ‘স্যার কেমন আছেন আপনি।’ জবাবে এরশাদ বলেন, ‘ভালো থাকার চেষ্টা করছি।

এর আগে বিকেল ৪টার দিকে এরশাদ বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবন থেকে সংসদের উদ্দেশে রওনা দেন। এরশাদের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী জানান, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদেরও বারিধারার বাসা থেকে সংসদের উদ্দেশে রওনা দেন। বিকেল ৪টা ৩৫ মিনিটের দিকে তিনি সংসদ ভবনে এসে পৌঁছান।

৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের মাধ্যমে একাদশ সংসদ গঠনের পর রোববারই প্রথম অধিবেশনে যোগ দিলেন এরশাদ। গত ৩০ জানুয়ারি একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হলেও সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন থাকায় এবং গত ৪ ফেব্রুয়ারি দেশে ফেরার পরেও পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় এতদিন সংসদে যোগ দিতে পারেননি এরশাদ।

রোববার গাড়িতে করে সংসদ ভবনে এসে পৌঁছানোর পর হুইল চেয়ারে লিফটে সরাসরি বিরোধী দলের লবিতে যান এরশাদ। গাড়ি থেকে নেমে হুইল চেয়ারে বসে লবি পর্যন্ত যেতে তাকে সহযোগিতা করেন জাপার কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা। এসময় কুশল জানতে চাইলে এরশাদ হেসে বলেন , ‘এখনও বেঁচে আছি।’

লবিতে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর আবারো হুইল চেয়ারে করে অধিবেশন কক্ষে যান এরশাদ। হুইল চেয়ার থেকে নামিয়ে জিএম কাদের ও রাঙ্গা দুইপাশ থেকে এরশাদকে ধরে হাটিয়ে বিরোধী দলীয় নেতার চেয়ারে বসিয়ে দেন। এসময় এরশাদ অধিবেশনে থাকা সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে হাত নেড়ে সালাম জানান। সরকারি দলের সামনের সারিতে থাকা আওয়ামী লীগের প্রবীন নেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, বেগম মতিয়া চৌধুরী, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রমুখ সিনিয়ার নেতারা এসময় হাত তুলে এরশাদকে সালাম জানান।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২২টি আসনে জয়লাভ করে জাতীয় পার্টি। এরপর ৩ জানুয়ারি দলের নির্বাচিত অন্যান্য সংসদ সদস্যরা শপথ নিলেও অসুস্থতার কারণে শপথ নিতে পারেননি জাপা চেয়ারম্যান। পরে ৬ জানুয়ারি তিনি হুইল চেয়ারে এসে শপথ গ্রহণ করেন। এর মাঝে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিয়ে দেশে ফিরেন এরশাদ।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech