ওর বুকের পাটা ছিইড়া ফালামু : শামীম ওসমান

  

পিএনএস ডেস্ক : ফতুল্লার ভুইগড় রুপায়ন টাউনে দলবল নিয়ে কৃষক লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন তান্ডবের ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। শনিবার দুপুরে ভূঁইগড় রূপায়ন টাউনে বিক্ষুব্ধ ফ্ল্যাট মালিকদের সাথে মতবিনিময়কালে শামীম ওসমান বলেছেন, ‘আমার মেয়েরা এখানে হাঁটবে থাকবে, এখানে মুরুব্বিরা থাকবে, কোনো বেয়াদব থাকবে না। যদি এই বাসিন্দাদের মধ্যে খারাপ কেউ থাকে, তার নাম শেষ কইরা দিমু, তারে শুদ্ধা নাই করা দিমু আমি। যদি আপনারা চান। আপনারা না চাইলে আমার কিছু করার নাই।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি আমার কাজ করতেছি, এটা আমার ডিউটি। আপনারদের কাছে আমার অভিযোগ, আপনারা আপনাদের ডিউটি পালন করেন নাই। আপনারা কিন্তু বস্তিতে থাকেন না। সবাই মধ্যবিত্ত, উচ্চ মধ্যবিত্ত ঘরের বাসিন্দা এখানে। এবং ম্যাক্সিমাম লোক শিক্ষিত। একটা লোকের দায়িত্ব হলো না যে, ‘আচ্ছা শামীম ওসমানরে বইলা দেখিতো, আমাদের এলাকায় এই সমস্যাগুলো হচ্ছে, একবার জানাই দেখি তো, লোকটারে টেস্ট করি।’ টেস্ট করতেন, টেস্টও করবেন না? না কাঁনলে মাও দুধ দেয় না মনে রাখবেন।’

রূপায়ন টাউনের বাসিন্দাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আশে পাশের এলাকার ঝামেলাও চুপ করে আমাকে জানাবেন। টেস্ট কইরা দেখেন না। যদি না হয় তখন বলবেন। এর বিনিময়ে কিছু চাই না। আমি এটুকু চাই আমার মৃত্যুর পরে যেন আপনার চোখে আমার জন্য পানি আসে। এটাই আমার চাহিদা। আমি আল্লাহ ছাড়া আমি কাউরে ভয় পাই না।’

নারায়ণগঞ্জে অনেক খেলা হচ্ছে মন্তব্য করে সাংসদ শামীম ওসমান বলেন, ‘প্রত্যেকটা খেলার জবাব আমার কাছে আছে। হাতের মুঠে ডকুমেন্ট আছে। আমি ছাড়ি না। কারণ আমি সম্মানিত লোকের সম্মান নষ্ট করি না। চেষ্টা করি ধৈর্য ধারণ করার।’

স্থানীয়দের আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, ‘আমি পরিষ্কার ভাষায় বলে দিতে চাই যারান এইখানে বাইরের দু চারজন লোক আছেন, আল্লাহর নামে কসম খইয়া বলতাছি, খোদার নামে কসম খাইয়া বলতাছি আমি শামীম ওসমান, এই খানে আইসা যদি কেউ এমন কোনো কর্মকান্ড করে যার কারণে আমার মেয়েরা ভয় পায়- আমি রাস্তায় নামবো কিনা, কোনো মুরুব্বী ভয় পায়- আমি অসম্মানিত হবো কিনা কিংবা কেউ যদি ভয় পায় যে, আমি এই এলাকায় সুন্দরভাবে থাকতে পারবো কিনা- আমি তার বুকের মধ্যে হাত দিয়া বুকের পাটা ছিইড়া ফালামু, তাকে ছাড়বো না। এটা আমার ওয়াদা যদি আমি বাঁইচা থাকি।’

নাজিম উদ্দিনকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে সাঁটানো ফেস্টুন ব্যানার দেখিয় শামীম ওসমান বলেন, ‘এই পোষ্টার ফোষ্টার সব নামায় ফালান, এই গুলাস দরকার নাই, এই গুলা আমাদের কোনো কাজে লাগবে না। অনেকেই আছে আমাদের নাম ভাঙ্গাইয়া অনেক কিছু কইরা ফালায়, আমরা জানিও না। তিন পুরুষ ধরে আমরা নারায়ণগঞ্জে কাজ করতাছি। কোনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবো না, সে সরকার হউক, প্রশাসন হউক, পুলিশ হউক, আমি ন্যায্য কথা বলতে আসছি। বলবো।’

এর আগে বৃহস্পতিবার সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা কৃষক লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন ও তার বাহিনী কয়েকটি ফ্ল্যাটে হামলা চালিয়ে মারধর করে। এতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের শিক্ষা ক্যাডার আব্দুস সালামসহ ৫ জন আহত হন। এ ঘটনায় শুক্রবার প্রায় কয়েকশত ফ্ল্যাট মালিক নাজিম উদ্দিনের হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে মানববন্ধন করে।

এছাড়াও এ ঘটনায় ভুক্তভোগি আবু সাঈদ পাটোয়ারী ও আশরাফ সিদ্দিকী বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা করেন ফতুল্লা মডেল থানায়। মামলায় ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন ও তার বাহিনী ৭০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech