মুখ খুললেন যুবলীগ চেয়ারম্যান

  

পিএনএস ডেস্ক : ক্যাসিনো বিরোধী চলমান অভিযানে অনেকটাই ব্যাকফুটে আওয়ামী লীগের অন্যতম বড় সহযোগী সংগঠন যুবলীগ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জালে একে একে ধরা পড়েছেন সংগঠনটির ঢাকা মহানগরের বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় নেতা। এমন অভিজ্ঞতায় চরম অস্বস্তিতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এরমধ্যে সংগঠনটির চেয়ারম্যানের ব্যাংক হিসেব তলব করা হয়েছে। গুঞ্জন আছে দেশ ত্যাগের নিষেধাজ্ঞাও।

তবে দেশ ছেড়ে পালাবেন না বলে জানিয়েছেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। তিনি জানান, তিনি এমন কোনো অপরাধ করেননি যে তাকে দেশ থেকে পালিয়ে যেতে হবে।

বিভিন্ন সংবামাধ্যমে যুবলীগের চেয়ারম্যানের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার খবর প্রকাশের প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার ওমর ফারুকের কাছে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়।

জবাবে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, আমার কাছে এমন কোনো সংবাদ আসেনি। আর আমি কেন বা পালাব? পালাবার কোনো কারণ তো নেই। আমি পালিয়ে যাবার লোক না। রাজনীতি করি। রাজনীতি করতে গেলে ভুলভ্রান্তি থাকতেই পারে। আমি কোনো অপরাধ করিনি যে, আমাকে পালিয়ে যেতে হবে। আর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আমাকে গ্রেপ্তার করলে আমার কাজ হবে আদালতে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণিত করা। অপরাধ হচ্ছে প্রমাণের বিষয়।

ঢাকায় ক্যাসিনো পরিচালনায় যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন সম্রাটসহ সংগঠনটির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সম্পৃক্ততার বিষয়টি গত মাসে প্রকাশ্যে আসার প্রথমে তাদের ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়। পরে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

গত রোববার সম্রাটকে গ্রেপ্তারের দুদিন আগে বৃহস্পতিবার যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুকের ব্যাংক হিসাব তলব করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল ইনটিলিজেন্স ইউনিট- এফআইইউ।

এফআইইউ থেকে সব ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের কাছে ওমর ফারুকের নাম এবং তার জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) নম্বর পাঠিয়ে তার সব ধরনের ব্যাংক হিসাবের তথ্য তিন দিনের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়। যদিও তার আগে অন্যদের ক্ষেত্রে এসব তথ্য চাওয়া হয়েছিলো বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়ে।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech