চট্টগ্রাম-৮ আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেলেন আবু সুফিয়ান

  

পিএনএস ডেস্ক : চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন আবু সুফিয়ান। তিনি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক ও চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সহভাপতি। এই আসন থেকে এর আগেও ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন আবু সুফিয়ান।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে চট্টগ্রাম-৮ আসনের বিএনপির প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হয়। সাক্ষাৎকার শেষে চূড়ান্ত প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে এই নির্বাচনে আমরা অংশ নিচ্ছি। চট্টগ্রাম-৮ আসনে তিন প্রার্থী মনোনয়ন চেয়েছিলেন। তারা সবাই দক্ষিণ জেলার গুরুত্বপূর্ণ নেতা। পার্লামেন্টারি পার্টি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ২০১৮ সালে নির্বাচনে যিনি মনোনয়ন পেয়েছিলেন আবু সুফিয়ান তাকেই প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আমরা নির্বাচন কমিশনকে বলবো, এই নির্বাচন অন্তত যদি তারা সুষ্ঠুভাবে করতে পারে তাহলে জনগণের কিছুটা আস্থা নির্বাচন ব্যবস্থার ওপর ফিরে আসতে পারে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে চট্টগ্রাম-৮ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী তিনজনের সাক্ষাতকার নেন মনোনয়ন বোর্ড। পার্লামেন্টারি কমিটিতে ছিলেন বিএনপি মহাসচিবসহ খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমিরউদ্দিন সরকারর, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

জানতে চাইলে আবু সুফিয়ান বলেন, এ সরকারের আমলে নির্বাচন নিয়ে আমরা আশাবাদী না। দলীয় আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। দল আমাকে মনোনয়ন দেয়ায় আমি দলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আশা করছি জনগণ আমার পাশে থেকে, দলের পাশে থেকে ১৩ই জানুয়ারি ধানের শীষের পক্ষে বিজয় ছিনিয়ে আনবে।

এর আগে সোমবার (৯ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড সভায় এই উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেয়া হয় চট্টগ্রাম দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিনকে।

উল্লেখ্য, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের কার্যকারী সভাপতি মঈন উদ্দীন খান বাদলের মৃত্যুতে এই আসনটি শূন্য হয়। আগামী ১৩ জানুয়ারি উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১২ ডিসেম্বর। যাচাই-বাছাই ১৫ ডিসেম্বর। প্রত্যাহারের শেষ দিন ২২ ডিসেম্বর। এ আসনে সবগুলো কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হবে। এ আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৭৫ হাজার ৯৯৬। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৯২২, মহিলা ভোটার ২ লাখ ৩৪ হাজার ৭৪।

বহুল আলোচিত ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেন। এখানে বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে বাদলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন