খালেদার মুক্তির দাবিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ

  


পিএনএস ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজের প্রতিবাদে ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল। বিক্ষোভ চলাকালে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে বিক্ষোভকারীরা।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া জুয়েলের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল মৌচাক মোড় থেকে শুরু হয়ে সফিনা হাসপাতাল হয়ে মালিবাগ রেলগেট গিয়ে শেষ হয়।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি গোলাম সরোয়ার, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদরেজ জামান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এস এম জিলানী, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক গাজী রেজওয়ান হোসেন রিয়াজ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সিনিয়র সহ-সভাপতি রফিক হাওলাদার, সাবেক কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনু মো. শামীম আজাদ, ওয়াহিদ বিন ইমতিয়াজ বকুল, সহ-সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন ফারুক, দফতর সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মনির, রাসেল মাহমুদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন উজ্জল, আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শফিউদ্দিন সেন্টু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বর্তমান সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ঝিলন, মহানগর উত্তরের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বির, সাবেক সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন লোবান, এমজি মাসুম রাসেল, ফরহাদ উদ্দিন, মাহমুদুল বারী, অমিত হাসান হাফিজ, ইঞ্জিনিয়ার বশির, মকবুল হোসেন, সদস্য এ বি এম মুকুল, ডা. জাহিদুল কবির জাহিদ, আশরাফ উদ্দিন জনি, আলাউদ্দিন জুয়েল, আমিনুল ইসলাম তালুকদার মহসিন, মো. জসিম উদ্দিন, জেড আই কামাল, আলাউদ্দিন জুয়েল, হারুন-অর-রশিদ, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সরদার নুরুজ্জামান, মোর্শেদ আলম প্রমুখ।

মিছিল শেষে এক পথসভায় শফিউল বারী বাবু বলেন, আজ দেশবাসীর প্রত্যাশা ছিল ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলায় অন্যায়ভাবে সাজাপ্রাপ্ত ‘গণতন্ত্রের মা’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তার প্রাপ্য অধিকার জামিন দেয়া হবে। কিন্তু বেগম জিয়াকে জামিনযোগ্য মামলায় জামিন না দিয়ে জামিন আবেদন খারিজের ঘটনায় দেশবাসী এবং বিএনপি ও অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী হতাশ ও বিক্ষুদ্ধ হয়েছে।

তিনি বলেন, আদালত জামিন না দেয়ার অর্থই হচ্ছে প্রতিহিংসাপরায়ণ সরকার বেগম জিয়াকে কারাগারেই নিঃশেষ করতে চায়। তবে বেগম খালেদা জিয়ার কোনো ক্ষতি হলে সেটির দায় এড়াতে পারবে না সরকার। জনগণ কড়ায়-গণ্ডায় এর হিস্যা আদায় করে নেবে। মিথ্যা ও সাজানো মামলায় নির্দোষ দেশনেত্রীকে জামিন না দেয়ার ঘটনায় সরকারের অমানবিক ও নিষ্ঠুর আচরণেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটলো। এই আচরণকে জনগণ কোনোদিনই ক্ষমা করবে না।

পিএনএস/ হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন