আধুনিকায়নের নামে পাটকল বন্ধ করা পাটখাতকে ধ্বংস করার শামিল: মেনন

  

পিএনএস ডেস্ক : আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের অন্যতম শরীক দল ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান বলেছেন, শ্রমিকের প্রতিনিধিত্ব করে নয়, সরকার বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিত্ব করে পাটকল বন্ধ করেছে। আধুনিকায়নের নামে যা করা হচ্ছে, তা এদেশের পাটনির্ভর শিল্পকে ধংস এবং শ্রমিকবিরোধী সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

সরকারি পাটকল বন্ধের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার, তার প্রতিক্রিয়ায় এমন মন্তব্য করেন মেনন। তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রায়ত্ত সম্পদ কোনোভাবেই আমরা পিপিপি’ নামে দিতে পারি না। এই শিল্প লাভজনক ছিল। এখন কেন লোকসানে তার কারণ বের করতে পারলেই সমাধান আসবে। পুরানো মেশিনের পরিবর্তে নতুন প্রযুক্তির মেশিন যুক্ত করতে পারলেই লাভ হবে’।

তিনি বলেন, ‘শ্রমিকদের বিদায়ের জন্য কথিত ৫ হাজার কোটি টাকার গোল্ডেন হ্যান্ডশেক ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ, ১২ শ’ কোটি টাকায় পাটকলে আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তি সংযোজনের বিকল্প প্রস্তাব গ্রহণ করে পাটশিল্প, পাটকল ও শ্রমিক রক্ষা করা সম্ভব। আর এটি সরকারকে বিবেচনা করতে বলব’।

বামপন্থি এ রাজনীতিক বলেন, ‘এই সরকার ক্ষমতায় এসে ২০১০ সালে পাটের পুনর্জাগরণের লক্ষ্যে পাটকমিশন গঠন করেছিল, যার উৎসাহে পাটের জিনোম আবিষ্কৃত হয়। অথচ সরকার তা আমলে না নিয়ে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, যা পাট অর্থনীতিকে ধংস করছে’।

‘পাট অর্থনীতিতে যে লুটপাট হয়েছে তা আড়াল করতেই এটিকে লোকসানী প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখানো হয়েছে। জামায়াত-বিএনপি সরকার বিরাষ্ট্রীয় নীতি অনুসরণ করেই এই সরকার সাম্রাজ্যবাদ ধারা অব্যহত রাখছে’। যোগ করেন মেনন।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন