রোনালদো-মার্সেলোয় বিধ্বস্ত পিএসজি

  

পিএনএস ডেস্ক: ফুটবল কতটুকু উত্তেজনাপূর্ণ খেলা হতে পারে তা আজ পুরো বিশ্ব দেখেছে। চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ ষোলোয় প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদ আর প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) মধ্যকার চরম উত্তেজণাপূর্ণ ম্যাচটিতে পিছিয়ে পড়েও জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে রিয়াল।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) এস্তাদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যু মাঠে ৩-১ গোলে পিএসজিকে বিধ্বস্ত করে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। জোড়া গোল করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। একটি গোল করেন মার্সেলো।

শুরুর ৩৩তম মিনিটে আদ্রিওঁ রাবিওর গোলে পুরো বার্নাব্যুকে স্তব্ধ করে এগিয়ে যায় পিএসজি। তাদের এগিয়ে থাকার আনন্দ প্রথমার্ধের শেষ পর্যন্তও স্থায়ী হয়নি। ৪৫তম মিনিটে রোনালদোর স্পট কিকে সমতায় ফেরার আনন্দে ভাসে পুরো গ্যালারি।

বাঁ দিক থেকে কিলিয়ান এমবাপের ক্রসে ব্যাকহিল করেছিলেন নেইমার। বল পেয়ে ডান পায়ের শটে জালে পাঠান ফরাসি মিডফিল্ডার আদ্রিওঁ রাবিও।

৪৫তম মিনিটে আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসো ডি-বক্সে জার্মান মিডফিল্ডার ক্রুসের কাঁধ ধরে ঠেকানোর চেষ্টা করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। তখন স্পট কিকে ঠিক দিকেই ঝাঁপিয়েছিলেন পুরো খেলায় চমক দেখানো পিএসজির গোলরক্ষক আরিওলা। তবে বল ফেরাতে পারেননি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে শততম গোলটি পেয়ে যান রোনালদো।

৮৩তম মিনিটে পিএসজি শিবিরে আবার রোনালদোর আঘাত। বদলি হিসেবে নামা মার্কো আসেনসিওর ক্রস গোলরক্ষক আরিওলা ফিরিয়েছিলেন, কাছে থাকা পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড হাটু গিয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন।

এই গোলটি হজম করতে না করতেই নেইমারের পিএসজির কফিনে শেষ পেরেকটি টুকে দেন তারই স্বদেশী খেলোয়ার মার্সেলো। পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে গেলেও গোলের দেখা পাননি নেইমার।

ফুটবল কতটুকু উত্তেজনাপূর্ণ খেলা হতে পারে তা আজ পুরো বিশ্ব দেখেছে। চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ ষোলোয় প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদ আর প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) মধ্যকার চরম উত্তেজণাপূর্ণ ম্যাচটিতে পিছিয়ে পড়েও জয়ের হাসি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে রিয়াল।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) এস্তাদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যু মাঠে ৩-১ গোলে পিএসজিকে বিধ্বস্ত করে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। জোড়া গোল করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। একটি গোল করেন মার্সেলো।

শুরুর ৩৩তম মিনিটে আদ্রিওঁ রাবিওর গোলে পুরো বার্নাব্যুকে স্তব্ধ করে এগিয়ে যায় পিএসজি। তাদের এগিয়ে থাকার আনন্দ প্রথমার্ধের শেষ পর্যন্তও স্থায়ী হয়নি। ৪৫তম মিনিটে রোনালদোর স্পট কিকে সমতায় ফেরার আনন্দে ভাসে পুরো গ্যালারি।

বাঁ দিক থেকে কিলিয়ান এমবাপের ক্রসে ব্যাকহিল করেছিলেন নেইমার। বল পেয়ে ডান পায়ের শটে জালে পাঠান ফরাসি মিডফিল্ডার আদ্রিওঁ রাবিও।

৪৫তম মিনিটে আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসো ডি-বক্সে জার্মান মিডফিল্ডার ক্রুসের কাঁধ ধরে ঠেকানোর চেষ্টা করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। তখন স্পট কিকে ঠিক দিকেই ঝাঁপিয়েছিলেন পুরো খেলায় চমক দেখানো পিএসজির গোলরক্ষক আরিওলা। তবে বল ফেরাতে পারেননি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে শততম গোলটি পেয়ে যান রোনালদো।

৮৩তম মিনিটে পিএসজি শিবিরে আবার রোনালদোর আঘাত। বদলি হিসেবে নামা মার্কো আসেনসিওর ক্রস গোলরক্ষক আরিওলা ফিরিয়েছিলেন, কাছে থাকা পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড হাটু গিয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন।

এই গোলটি হজম করতে না করতেই নেইমারের পিএসজির কফিনে শেষ পেরেকটি টুকে দেন তারই স্বদেশী খেলোয়ার মার্সেলো। পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে গেলেও গোলের দেখা পাননি নেইমার।

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech