'লজ্জার স্মৃতি' ভুলে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে সাকিব-তামিমরা?

  

পিএনএস ডেস্ক : প্রথম ম্যাচের লজ্জার রেকর্ড কি ভুল পারবে সাকিব-তামিমরা? হয়েতো পারবে। তবে এন্টিগা ম্যাচের স্মৃতি ভুলে আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া কিংস্টন টেস্টে ঘুড়ে দাঁড়াতে মরিয়া বাংলাদেশ। সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে ভালো করতে চায় টাইগাররা। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হবে দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।

এর আগে মাত্র দু'দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ইনিংস ও ২১৯ রানের বড় ব্যবধানে এন্টিগা টেস্ট হারে সফরকারী বাংলাদেশ দল। শুধুমাত্র হারের ব্যবধানই লজ্জা দিচ্ছে না টাইগারদের। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে রেকর্ড সর্বনিম্ন ৪৩ রানেও গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ।

গত জুনের প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব নেন ইংল্যান্ডের সাবেক খেলোয়াড় স্টিভেন রোডস। তার অধীনে নতুন স্বপ্ন নিয়ে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে নতুনভাবে পথচলা শুরু করার ইচ্ছা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু বিধিবাম। নতুন কোচের অধীনে নিজেদের প্রথম টেস্ট ম্যাচেই লজ্জার রেকর্ড গড়ে টাইগাররা।

এন্টিগা টেস্টের প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার কেমার রোচের ৫ উইকেট শিকারে ৪৩ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে এটিই সর্বনিম্ন রান হিসেবে রেকর্ড বইয়ে লিপিবদ্ধ হয়। প্রথম ইনিংসের ভুলগুলো দ্বিতীয় ইনিংসেও শুধরিয়ে নিতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে প্রথম ইনিংসের চাইতে কিছুটা হলেও মুখ রক্ষা হয়েছে টাইগারদের।

দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪৪ রান করতে পারে তারা। অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসেও বড় ধরনের বিপর্যয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান নিজেদের দ্বিতীয় টেস্টে ৬৪ রানের ইনিংস না খেললে এখানেও ১০০ নিচে গুটিয়ে যাবার শঙ্কায় পড়েছিল সাকিবরা।

দায়িত্বপূর্ণ হাফ-সেঞ্চুরিতে দলকে আরও লজ্জার হার থেকে তো রক্ষা করেছেনই, তার উপর হারের ব্যবধানও কমিয়েছেন সোহান। বোলিং-ও যুতসই হয়নি। তাই প্রথম ইনিংসে ৪০৬ রানের বড় সংগ্রহ দাড় করাতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সব মিলিয়ে পুরো টেস্টে যাচ্ছেতাই খেলেছে বাংলাদেশ। এমনটা ম্যাচ শেষে স্বীকার করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

তিনি বলেন, প্রথম টেস্টে আমরা ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই পিছিয়ে ছিলাম। ফলে ম্যাচে লড়াই করাটা আমাদের জন্য কঠিনই ছিল। আসলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে তিন বিভাগেই হেরে গেছি আমরা। এই কন্ডিশনের মানিয়ে নেয়া কঠিন হবে, জানতাম। পরের টেস্টের জন্য নিজেদের ভালোভাবে প্রস্তুত হতে হবে। ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামতে হবে আমাদের।

প্রথম টেস্ট বাজেভাবে হেরে অনুতপ্ত সাকিব। তার পথেই হাঁটলেন দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। এমন হারের কোন প্রকার অজুহাত দেখাননি তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় তামিম বলেন, আমাদের শেষ টেস্ট ম্যাচটি আপনাদের জন্য যেমন বিস্ময়ের ছিল, আমাদের জন্যও তাই ছিল। আমরা এর চেয়ে অনেক ভালো দল। যে ধরনের পারফরমেন্স করেছি, তা অবশ্যই গ্রহণযোগ্য নয়। এখন দলের ভেতর যে আবহ আছে, আমরা কোনভাবেই অজুহাত খোঁজার চেষ্টা করছি না। আমরা আশা করছি, পরের টেস্টে ভালো কিছু করবো।

বাজেভাবে এন্টিগা টেস্ট হারলে সেখান থেকে আত্মবিশ্বাস খোঁজার চেষ্টা করলেন তামিম, আমাদের দলের সবার জন্য সবচেয়ে জরুরি হলো, বিশ্বাসটা ধরে রাখা যে- আমরা ভালো খেলতে পারি। বিশ্বাস করতে হবে যে, আমরা বড় স্কোর গড়তে পারি। শেষ টেস্ট ম্যাচে সোহান যেভাবে ব্যাট করেছে, লোয়ার-অর্ডার যেভাবে করেছে সেটি ভালো ছিল। আর এটাই প্রমাণ করে যে, উইকেটে সময় কাটাতে পারলে উইকেট যতই কঠিন হোক না কেন রান করা যায়। আশা করি, জ্যামাইকায় আপনারা ভালো টেস্ট দেখবেন বা আমরা ভালো ম্যাচ উপহার দেয়ার চেষ্টা করবো।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ৬টি টেস্ট সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। সবগুলোই দুই ম্যাচের। এরমধ্যে ২০০৯ সালের সফরে দুই ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতেছিল বাংলাদেশ।

এর আগে ২০১৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-০ ব্যবধানে হারে টাইগাররা।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech