পাকিস্তানের পরাজয়ে বাংলাদেশের উন্নতি

  

পিএনএস ডেস্ক : আর মাত্র ৯ দিন। তারপরই শুরু হবে বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট। বিশ্বকাপের আগে নিজেদের ভালো ভাবে প্রস্তুত করছে অংশগ্রহণকারী দল গুলো। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ দল। সফলতার সাথেই শেষে হয়েছে টাইগারদের প্রস্তুতির সিরিজ।

বাংলাদেশের মত পাকিস্তানও বিশ্বকাপ পূর্ববর্তী প্রস্তুতি সিরিজ খেলে। বিশ্বকাপের আয়োজক ইংল্যান্ডের মাটিতেই তারা পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলে। আর সিরিজে ৪-০তে লজ্জার হারা হারে পাকিস্তান। শুধু তাই নয় সবশেষ ১০ ম্যাচের ১০টিতেই পরাজিত হয় পাক ক্রিকেটাররা।

দলটি সব শেষ জয়ের দেখা পায় বছরের শুরু দিকে। জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে। যদিও প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ওই সিরিজটি হেরেছিল তারা। এরপর অস্ট্রেলিয়া বিপক্ষেও সিরিজ হেরেছে। সবশেষ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে সরফরাজ আহমেদ নেতৃত্বাধীন দল। এই হারের ফলে বাংলাদেশের লাভই হলো; আইসিসি ওডিআই র‌্যাঙ্কিংয়ে পাকদের সঙ্গে রেটিং পয়েন্ট কমলো টাইগারদের!

রবিবার (১৯ মে) পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে বোলারদের বিচক্ষণতার অভাবে আরও একটি পরাজয় দেখল পাকিস্তান। সরফরাজের দল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ৪-০তে হেরেছে। সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। ইংল্যান্ড সফরে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে রানের পাহাড় গড়েও তিন ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি পাকিস্তান। শেষ ম্যাচ পাক বোলারদের তুলোধুনে করে ৯ উইকেটে ৩৫১ রানের পাহাড় গড়ে স্বাগতিকরা। জবাবে ২৯৭ রানেই থেমে যায় পাকিস্তানের ইনিংস।

এই হারের ফলে আইসিসির রেটিং পয়েন্টে পাকিস্তান হারিয়েছে ১ পয়েন্ট। গতকাল পর্যন্ত তাদের পয়েন্ট ছিল ৯৫ কিন্তু সিরিজ হারায় নেমে এসেছে ৯৪তে! তবে উন্নতি ঘটেছে বাংলাদেশের। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে উইন্ডিজকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক কোনো শিরোপা জিতে বাংলাদেশ। যার ফলে ৩ পয়েন্ট পেয়ে ৮৬ পয়েন্ট থেকে এগিয়ে যায় ৮৯ পয়েন্টে (গতকালের রেটিং পয়েন্টের হিসাব)।

ইংলিশদের বিপক্ষে পাকরা হারায় তাদের অবনতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পয়েন্ট তালিকার সাতে থাকা টাইগাররা পেয়েছে পয়েন্ট। ৮৯ পয়েন্ট থেকে ৯০ পয়েন্টে পৌঁছেছে সাকিব-তামিমরা। অন্যদিকে, বাংলাদেশের পরেই থাকা উইন্ডিজরাও হারিয়েছে পয়েন্ট। ৭৯ পয়েন্ট থেকে ৭৭ এ নেমে গেল তারা!

আর সবার ওপরে থাকা ইংল্যান্ডের পয়েন্ট ১২৫! দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতের (১২১) থেকে ৬ পয়েন্ট পিছিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা (১১৫)।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech